kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ কার্তিক ১৪২৭। ৩০ অক্টোবর ২০২০। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

শুরু হলো দেশের প্রথম অনলাইন সুন্দরী প্রতিযোগিতা

অনলাইন ডেস্ক   

২৬ জুলাই, ২০২০ ১৫:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শুরু হলো দেশের প্রথম অনলাইন সুন্দরী প্রতিযোগিতা

মিস আর্থ একটি আন্তর্জাতিক সুন্দরী প্রতিযোগিতা, যা ২০ বছর ধরে প্রায় ৯৪টি দেশে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এই প্রতিযোগিতায় নারীর বাহ্যিক চাকচিক্যের চেয়ে বুদ্ধি-বিবেকের সৌন্দর্যকে প্রাধান্য দেওয়া হয়ে থাকে। ২০২০ সাল থেকে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে। বাংলাদেশি কনসালটেন্সি প্রতিষ্ঠান ট্রিপল নাইন গ্লোবাল এই প্রতিযোগিতার লাইসেন্সের অধিকারী হয়েছে। ট্রিপল নাইন গ্লোবাল ও অশেষ লি.-এর যৌথ উদ্যোগে এই প্রতিযোগিতার রেজিস্ট্রেশন ২৫ জুলাই থেকে শুরু হয়েছে, চলবে ১৮ আগস্ট পর্যন্ত। মূল প্রতিযোগিতা শুরু হবে ২২ আগস্ট থেকে, শেষ হবে ৪ অক্টোবর, ২০২০।  মূল আন্তর্জাতিক পর্ব শুরু হবে ২২ অক্টোবর থেকে ফিলিপাইনের ম্যানিলা শহরে। শেষ হবে ডিসেম্বরে। 

মিস আর্থ বাংলাদেশের প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক সুন্দরী প্রতিযোগিতা, যা সম্পূর্ণভাবে অনলাইনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।  যেসব নারী অব্যবহৃত প্লাস্টিক, কাপড়, ই-ওয়েস্ট, মেটাল, পেপার ও অর্গানিক ওয়েস্ট দিয়ে আবার নতুন পণ্য তৈরি করতে পারেন, তাঁরা এই প্রতিযোগিতায় বিশেষভাবে গুরুত্ব পাবেন।  প্রত্যেক প্রতিযোগী পাচ্ছেন একটি নিশ্চিত উপহার এবং টপ ১৬ জন বিজয়ী পাচ্ছেন আকর্ষণীয় পুরস্কার।  পাশাপাশি প্রায় ১০০০ সৃজনশীল প্রতিযোগীকে নারী উদ্যোক্তা হিসেবে তুলে ধরা হবে। 

মিস আর্থ বাংলাদেশের ন্যাশনাল ডিরেক্টর নায়লা নোমান বারী বলেন , আমরা এসব মেয়েকে ডাকছি ‘সুপারগার্ল’ নামে। প্রতিটি পরিবারে একটি করে সুপারগার্ল আছে। যাদের শৌখিনতাই হয়ে উঠতে পারে পরিবারের দুঃসময়য়ের কাণ্ডারি। আমরা রি-ইউজ ও রি-সাইকেল পণ্য ব্যবহারে জনগণকে সচেতন করে তুলতে সোশ্যাল মিডিয়ার ইতিবাচক ব্যবহার করতে চাই। পাশাপাশি পরিবেশদূষণ রোধে এসব পণ্যের নতুন ক্রেতা ও বিক্রেতা তৈরিতে অবদান রাখতে চাই।    

এর প্রধান উপদেষ্টা, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন চলচ্চিত্র পরিচালক নোমান রবিন বলেন, 'বছরে অন্তত দুবার সরকারি, বেসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, গ্লোবাল প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের শুভাকাঙ্ক্ষীদের বিভিন্ন সামগ্রী উপহার হিসেবে দিয়ে থাকে। নতুন করে প্লাস্টিক বা অন্যান্য পণ্য উৎপাদনে উৎসাহ প্রদান না করে কেন আমরা আমাদের শিক্ষিত তরুণীদের হাতের তৈরি রি-সাইকেল, রি-ইউজ পণ্য উপহার হিসেবে ব্যবহার করব না? এতে প্রকৃতিতে জঞ্জাল কিছুটা হলেও কমবে, বাড়বে সচেতনতা, নিজের পায়ে দাঁড়াবে কিছু শিক্ষিত বিবেকবান নারী। তাই আমাদের এই উদ্যোগের সঙ্গে সবাইকে একাত্ম হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।  

রেজিস্ট্রেশন করা যাবে এই ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপে। www.missearthbangladesh.com 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা