kalerkantho

শনিবার । ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩০  মে ২০২০। ৬ শাওয়াল ১৪৪১

আলাপনে রূপন্তি

সিডনিতে আমরা সরকারি নির্দেশনা মেনে চলছি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ মার্চ, ২০২০ ১৬:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিডনিতে আমরা সরকারি নির্দেশনা মেনে চলছি

অস্ট্রেলিয়ান বংশোদ্ভুত বাংলাদেশি অভিনেত্রী রূপন্তি আকিদ। বাংলাদেশের বেশকিছু নাটকে কাজ করে প্রশংশিত হয়েছেন। রুপন্তি অস্ট্রেলিয়ায় থাকেন। সেখানেই পড়াশোনা ও কাজ। কিন্তু সময় পেলে বাংলাদেশে আসেন। মাহফুজের সাথে 'হ্যালো বাংলাদেশ' নাটক করে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন রুপন্তি।

সারাবিশ্বে কোভিড ১৯ তাণ্ডবে বিধ্বস্ত। অস্ট্রেলিয়াতেও আঘাত হেনেছে এই ভাইরাস। সিডনি থেকে রুপন্তি কালের কণ্ঠকে জানালেন সেখানকার অবস্থা বললেন রুপন্তি, 'এখানে ভয় আছে। সবাই তো শঙ্কায়। আমাকে অফিস করতে হচ্ছে। সরকারি চাকরি আমার তাই তেমন সমস্যা হচ্ছে। সুরক্ষিত অবস্থায় চাকরি করছি।'

রুপন্তি বলেন, এখানে স্কুল কলেজ খোলা। কিন্তু জনসমাগম হয় এমন স্থানগুলো যেমন কফিশপ, রেস্টুরেন্ট এসব বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফলে বাংলাদেশ থেকে আসা অনেক শিক্ষার্থীর পার্টটাইম চাকরি গুলো চলে গেছে। এখানে সরকার আমাদের যেসব নির্দেশনা দিয়েছে তা পালন করছি। একজনের জন্য ১০ জন সাফার করবে, এটা তো হতে পারে না। তাই সবাই সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। আমিও অফিস ও বাসার বাইরে যাচ্ছি না। অধিকাংশ মানুষই ঘরে অবস্থান করছে। 

শোবিজ অঙ্গনের কর্মকাণ্ডও থেমে গেছে উল্লেখ করে রুপন্তি বলেন, এখন তো ফিল্মি কাজ সবই থমকে গেছে। অনলাইনে আবেদন করা, কিছু প্রসেসিং এর কাজ ছাড়া করণীয় তেমন কিছু নেই। ঢাকার কিছু কাজ বাকি আছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে যাবো। এখন প্রার্থনা করছি পরিস্থিতি যেন দ্রুত ভালো হয়ে যায়।  

কিছুদিন আগে বাংলাদেশের বিভিন্ন পরিচালকের পাঁচটি নাটকে অভিনয় করেছেন রুপন্তি—‘ঘুমিয়ে পড়েছে মধ্যরাত’, ‘গল্পটি আংশিক সত্য’, ‘অথবা একটা খুনের গল্প’, ‘শারমিনের ব্যক্তিগত গল্প’, ‘কোন আলো লাগল চোখে’। বাংলাদেশ থেকে নাটকের টিম গিয়ে অস্ট্রেলিয়াতেই এগুলোর শুটিং করেছিল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা