kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

একুশে টিভিতে ড্রামা সিরিয়াল ‘মূ’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১০:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একুশে টিভিতে ড্রামা সিরিয়াল ‘মূ’

জনপ্রিয় চীনা ড্রামা সিরিয়াল ‘মূ’। চীনের মিং সাম্রাজ্যের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ, ষড়যন্ত্র, ঘৃনা ও ভালোবাসার ঘটনা প্রবাহ তুলে ধরা হয়েছে এই ধারাবাহিকে। এর পর্ব সংখ্যা ১০০।

বাংলায় ডাবিংকৃত এই সিরিয়ালটি শনিবার ১৫ই ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে একুশে টেলিভিশনে।

২০১২ সালে সিরিজিটি প্রথম চীনের সরকারি স্টেশন সিসিটিভিতে ‘টার্বুলেন্স অব দ্যা মু ক্লেন’ নামে প্রচারিত হয়। ‘মূ’ ড্রামা সিরিজটি মূলত চীনা সাম্রাজ্যের রাজপরিবারের দ্বন্দ ও ঘটনা প্রবাহ নিয়ে নির্মিত। সিরিজের কাহিনী চিত্রে দেখা যায়, রাজ পরিবারের সদস্যরা ক্ষমতার লোভে নিজেদের মধ্যে সর্বদা যুদ্ধ-বিগ্রহে লিপ্ত থাকতো। সাধারণ পরিবার থেকে আসা আলেকু পাঁচ বছর বয়সে হৃদয়ে প্রতিশোধের আগুন নিয়ে ‘মূ’ পরিবারকে ধ্বংস করার লক্ষ্যে রাজ-পরিচারিকা হিসেবে প্রাসাদে প্রবেশ করে। দীর্ঘ বিশ বছর ‘মূ’ পরিবারের সঙ্গে অতিবাহিত করেও তার প্রতিশোধের আগুন নেভেনি।
কিন্তু এই দীর্ঘ পরিক্রমায় আলেকু রাজপরিবারের অন্যতম সদস্য মূ-জেং এর সঙ্গে গভীর প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে, যা রাজপরিবার কোনও ভাবেই মেনে নিতে পারে না। 

রাজপরিবারের দুর্বিষহ প্রতিবন্ধকতার মুখে একসময়ে আলেকু ও মূ-জেং একসঙ্গে আত্মহননের পথ বেছে নেয় এবং পরে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে নানা ঘাত-প্রতিঘাতের পর আলেকু’র দূরদর্শিতা ও বুদ্ধিমত্তায় তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়। অত:পর ধীরে ধীরে রাজপরিবারের সকল অর্ন্তদ্বন্দ দূর করে আলেকু হয়ে ওঠে ‘মূ’ রাজপরিবারের অন্যতম ক্ষমতাধর ও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র।

চীনের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে তৈরি করা এই ড্রামা সিরিজটি পরিচালনা করেছেন রিংগো ইয়ু। ওয়াং জুয়ানের চিত্রনাট্যের এই সিরিজ ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে। উল্লেখ্য, মিং সাম্রাজ্য ১৩৬৮ সাল থেকে ১৬৪৪ সাল পর্যন্ত প্রায় ৩০০ বছর চীন শাসন করে। প্রতিদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা ও রাত সাড়ে ১০টায় ড্রামা সিরিয়ালটি প্রচার হবে একুশে টেলিভিশনে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা