kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

দেশজুড়ে প্রশংসা পেয়ে ঢাকায় মুক্তি পাচ্ছে 'আহত ফুলের গল্প'

১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৪৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দেশজুড়ে প্রশংসা পেয়ে ঢাকায় মুক্তি পাচ্ছে 'আহত ফুলের গল্প'

দেশজুড়ে প্রশংসা কুড়িয়ে ঢাকায় বিকল্প ব্যবস্থায় মুক্তি পাচ্ছে অন্ত আজাদের প্রথম চলচ্চিত্র ‘আহত ফুলের গল্প’। রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বিকল্প ব্যবস্থায় দর্শকদের জন্য চলচ্চিত্র প্রথম প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।

এর আগে গত বছরের ঈদুল আজহায় ‘আহত ফুলের গল্প’ সিনেমাটি পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ থানা থেকে প্রথম প্রদর্শনীর হয়। উল্লেখ্য দেবীগঞ্জ থানায় সিনেমাটির সিংহভাগ অংশের শুটিংও সম্পন্ন হয়, আর গল্পটিও এই জনপদের।  সেসময়ই নির্মাতা অন্ত আজাদ বলেছিলেন, 'দেবীগঞ্জের পর দেশব্যাপী শিল্পকলা একাডেমি এবং বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে সিনেমাটির প্রদর্শনী চলবে, যদিও পরে হলে মুক্তি পাবে।' 

কামরুজ্জামান রাব্বীর কণ্ঠে 'আমি তোমায় চাইরে...'

এরপর রংপুরের রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, জেলা শিলকলা একাডেমি চট্টগ্রাম, জেলা শিল্পকলা একাডেমি বগুড়া,*জহির রায়হান চলচ্চিত্র সংসদ নওগাঁ প্রদর্শিত হয়েছে আহত ফুলের গল্প। বলা যায় সারাদেশেই আহত ফুলের গল্প প্রশংসিত হয়েছে। পঞ্চড়ের দেবীগঞ্জে প্রতিবেদক নিজেই ছবিটির প্রদর্শনী দেখেছেন এবং দর্শকদের প্রতিক্রিয়া নিয়েছেন। কয়েকটি চরিত্রের দুর্বলতা ছাড়া আহত ফুলের গল্প পূর্ণাঙ্গ ও সময়ের মানসম্পন্ন একটি চলচ্চিত্র।

সিনেমার পরিচালক যখন নিজেই টিকেট বিক্রেতা

২০১৬ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি নিজস্ব অর্থায়নে ছবিটির নির্মাণ কাজ শুরু করেন তিনি। এই ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাহিয়া তাজিন খান ও সুজন মাহাবুব। এছাড়াও  গাজী রাকায়েত, অনন্যা হক, আলী আহসান, শেলী আহসান,  জয়া, অভি চৌধুরী, শান্ত কুন্ডু, কামরুল হাসান, তৌহিদুল আলম, সজীব, রিফাত, পিয়ারা বেগম, শহীদুল ইসলাম, ওমরচাঁদ, ইকতারুল ইসলাম, আরিফ, মিনহাজ, তাজিন, রাব্বি, শিরিনসহ অনেকেই রয়েছেন।

গত বছরের ১ জুলাই  আনকাট সেন্সর পায় ছবিটি। যদিও পূর্ণাঙ্গ সিনেমার গল্প কয়েকটি স্তরে প্রবাহিত। তবে গল্পের উপরিতলে শাপলা ও সবুজের একটি বিরহ নির্ভর প্রেমের গল্প দেখতে পাবেন দর্শক। এর সমান্তরালে চলবে অন্যান্য গল্পও।

এই সিনেমায় দর্শক ৪টি পূর্ণাঙ্গ গান এবং ১টি উত্তর বঙ্গের বিয়ের গীত শোনা যাবে। রবীন্দ্র সংগীত ও বিয়ের গীতটি ছাড়া, বাকি গান তিনটি মৌলিক। মৌলিক গান গুলো লিখেছেন- টোকন ঠাকুর, কামরুজ্জামান কামু, সোলায়ামন আকন্দ। কণ্ঠ দিয়েছেন যথাক্রমে- পিন্টু ঘোষ, কামরুজ্জামান রাব্বী ও লিপু অসীম। রবীন্দ্র সংগীতটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন- রোকন ইমন। আর বিয়ের গীতটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন- উত্তর বঙ্গের স্থানীয় শিল্পীরা।

পিন্টু ঘোষের কণ্ঠে ‘দীঘি বান্ধা ঘাটে’

ছবিটি প্রযোজনা করছে ওশান মাইন্ড এন্টারটেইনম্যান্ট। ঢাকায় ছবি মুক্তির আগে ‘দীঘি বান্ধা ঘাটে’ নামে চলচ্চিত্রের একটি গান প্রকাশ করা হয়েছে ইউটিউবে। টোকন ঠাকুরের কথায় গানে সুর ও কণ্ঠ দিয়েছেন পিন্টু ঘোষ; সংগীত রোকন ইমন ও পিন্টু ঘোষের। তবে এর আগেই রাব্বীর কণ্ঠে 'আমি তোমায় চাইরে বন্ধু...' গানটি বেশ শ্রোতাপ্রিয়তা পায়। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা