kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

থ্রিডি অ্যানিমেশন ফিল্ম 'টুমরো'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



থ্রিডি অ্যানিমেশন ফিল্ম 'টুমরো'

দীপ্ত টিভিতে প্রচার হতে চলেছে বাংলাদেশে নির্মিত থ্রিডি অ্যানিমেটেড ফিল্ম 'টুমরো'। এই উপলক্ষে আজ দীপ্ত টিভিতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন দীপ্ত টিভির পরিচালক কাজী জাহিন হাসান, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফুয়াদ চৌধুরী, হেড অফ নিউজ ইব্রাহীম আজাদ, ফিল্মটির পরিচালক মোহাম্মদ শিহাব উদ্দিন এবং এনিমেটর মুরাদ আবরার। জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত সচেতনতা তৈরি করার উদ্দেশ্যে নির্মিত এই ফিল্ম এর প্রিমিয়ার শো অনুষ্ঠিত হবে ২৩ নভেম্বর। ২৯ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭ টায় দীপ্ত টিভিতে ফিল্মটির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে এবং পরদিন ৩০ নভেম্বর দুপুর ১২টা ৩০মিনিটে পুনঃপ্রচারিত হবে। 

কাজী জাহিন হাসান এবং কাজী জিসান হাসান এর প্রযোজনায় ফিল্মটি রচনা করেছেন নাসিমুল হাসান ও আহমেদ খান হীরক। ২৫ মিনিট দীর্ঘ এই অ্যানিমেটেড ফিল্মটি পরিচালনা করেছেন মোহাম্মদ শিহাব উদ্দিন। বাংলাদেশের সাইকোর স্টুডিওতে ফিল্মটি নির্মিত হয়।

ফিল্মটিতে দেখানো হয়েছে বৈশ্বিক উষ্ণতার প্রভাবে মেরু অঞ্চলের বরফ গলে তলিয়ে যাবে বাংলাদেশসহ আরো অনেক দেশ; ভবিষ্যতের পৃথিবী হবে খুব ভয়ঙ্কর। সেই ভয়ঙ্কর ভবিষ্যতকেই রাতুল নামের এক শিশু দেখে ফেলে অতিপ্রাকৃত চরিত্র 'বাতাসের বুড়ো'র মাধ্যমে। যে রাতুল এতদিন প্রকৃতিকে উপেক্ষা করে গেছে সেই রাতুলই এবার ভার নেয় পৃথিবীর ভবিষ্যত বদলাবার। তার সঙ্গী হয় পৃথিবীজুড়ে থাকা হাজারও শিশু-কিশোর। ধীরে ধীরে গড়ে ওঠে জনমত। জীবাশ্ম জ্বালানির ওপর করারোপসহ আরো এমন কিছু করে রাতুলেরা যাতে পৃথিবীর এই মহাদুর্যোগ মোকাবেলা শেষ পর্যন্ত সম্ভব হয়ে ওঠে।

অ্যানিমেটেড ফিল্ম 'টুমরো'র মূল উদ্দেশ্য শিশু-কিশোরদের কাছে জলবায়ু পরিবর্তনের সংকটকে তুলে  ধরা। বিশ্বের রাষ্ট্রগুলো যেন জীবাশ্ম জ্বালানীর ওপর কর আরোপসহ নবায়ণযোগ্য শক্তিতে অধিকতর বিনিয়োগ করে এমন একটি সমাধান এই ফিল্মটিতে দেখানো হয়েছে।  

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা