kalerkantho

রবিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০২০। ৫ মাঘ ১৪২৬। ২২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

চলে গেলেন নাট্যাভিনেতা অরুণ ভট্টাচার্য নয়ন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৬:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চলে গেলেন নাট্যাভিনেতা অরুণ ভট্টাচার্য নয়ন

ময়মনসিংহের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে আজ এক শোকের দিন। উদীচী ময়মনসিংহের সাবেক সহ-সভাপতি, বিশিষ্ঠ নাট্যাভিনেতা, নির্দেশক এবং প্রশিক্ষক অরুণ ভট্টাচার্য নয়ন আজ বৃহস্পতিবার ভোরে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি অসুস্থ হয়ে শয্যাশায়ী ছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর। তিনি স্ত্রী, দুই মেয়ে এবং এক ছেলেসহ অসংখ্য সহযোদ্ধা, গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর বড় ভাই প্রখ্যাত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী তপন ভট্টাচার্যও ২০১৫ সালে পরলোকগমন করেন।

অরুণ ভট্টাচার্য নয়ন ছাত্রাবস্থা থেকেই ময়মনসিংহ শহরের বিভিন্ন নাট্যসংস্থায় কাজ করতেন। দীর্ঘ সাংস্কৃতিক জীবনে তিনি উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সক্রিয় সদস্য ছিলেন। তাঁর অভিনীত 'মহুয়া' একসময় বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। এছাড়া তিনি উদীচী সংগীত বিদ্যায়তনের নাটক ও আবৃত্তি বিভাগের প্রশিক্ষক এবং মুক্তবাতায়ন পাঠচক্রের সদস্য ছিলেন। পাশাপাশি ময়মনসিংহের বহুরূপী নাট্যগোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত ছিলেন অরুণ ভট্টাচার্য নয়ন। উদীচী এবং বহুরূপীর হয়ে তিনি ময়মনসিংহ-ঢাকাসহ দেশের নানা জেলার মঞ্চে অসংখ্য নাটকে অভিনয় করেছেন।

তাঁর ছোট ভাই বিশিষ্ট অভিনেতা এবং নির্দেশক মণিভূষণ ভট্টাচার্য কালের কণ্ঠকে বলেন, 'দাদাকে বাঁচাতে পারলাম না। কাল রাত থেকেই উনার অবস্থার অবনতি ঘটেছিল। প্রেশার নেমে গিয়েছিল। ডাক্তার এসে ওষুধ দিয়ে যান। স্যালাইন দিয়ে যান। অবস্থার কিছু উন্নতি হয়। এসময় তিনি তার নাট্যাঙ্গনের সহকর্মীদের খোঁজখবর নেন। এরপর রাতে ঘুমের মধ্যেই একটি স্ট্রোকে আক্রান্ত হন তিনি। ভোরবেলা হাসপাতালে নেওয়ার পর ডাক্তারার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।'

কান্নাজড়িত কণ্ঠে মণিভূষণ ভট্টাচার্য আরও জানান, 'আমার অভিনয়ে আসা নয়নদার অবদান। আমি হয়তো নাটক করতাম, কিন্তু আজকের মণিভূষণকে আমার দাদাই তৈরি করেছেন। তিনি আমাকে অভিনয়ে এনেছেন। বহুরূপী আর উদীচীতে তিনিই আমাকে নিয়ে গিয়েছেন।'

অরুণ ভট্টাচার্য নয়নের মরদেহ আজ বিকালে বহুরূপী নাট্যগোষ্ঠীর কার্যালয়ে নেওয়া হবে; যে সংগঠনের জন্মলগ্ন থেকে তিনি জড়িত ছিলেন। এরপর সর্বস্তরের মানুষের শেষ শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য মরদেহ রাখা তবে টাউনহলে। এরপর সন্ধ্যা ৬টায় শেষবারের মতো উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর কার্যালয়ে নেওয়া হবে অরুণ ভট্টাচার্য নয়নের মরদেহ। সেখানে সংগঠনের নেতাকর্মী এবং কমিউনিস্ট পার্টিসহ বিভিন্ন সংগঠন শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। এরপর সৎকারের জন্য অরুণ ভট্টাচার্যের মরদেহ শ্মশানে নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা