kalerkantho

কলকাতার সিরিয়াল আবারও বন্ধের মুখে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ আগস্ট, ২০১৯ ১৮:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কলকাতার সিরিয়াল আবারও বন্ধের মুখে

প্রচুর সমালোচনা থাকলেও দুই বাংলার দর্শকদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় কলকাতার বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের সিরিয়ালগুলো। কিন্তু এই শিল্প আবারও হুমকির মুখে পড়েছে। পারিশ্রমিক আদায় নিয়ে ছোট পর্দার শিল্পী ও প্রযোজকদের মধ্যের জট কিছুতেই কাটছে না। এবার অভিযোগ প্রযোজক সুব্রত রায়ের বিরুদ্ধে। তার প্রযোজনায় বিভিন্ন চ্যানেলে মোট ৫টি ধারাবাহিক চললেও দীর্ঘ দিন ধরে শিল্পীদের বকেয়া টাকা দিচ্ছেন না তিনি!

'করুণাময়ী রানি রাসমণি', 'দেবী চৌধুরানী', 'সৌদামিনীর সংসার', 'তারাপীঠ', 'মা মনসা'র প্রযোজক সুব্রত। সূত্রের খবর, শিল্পী, কলাকুশলী মিলিয়ে ১১ কোটি টাকারও বেশি পাওনা প্রযোজকের কাছ থেকে। কিন্তু তিনি সেসব পরিশোধের নামও করছেন না। নিরুপায় হয়ে শিল্পীরা আর্টিস্ট ফোরামে অভিযোগ জানিয়েছেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে শিল্পীদের কাজ বন্ধ রাখতে বলে আর্টিস্ট ফোরাম। শুক্রবার সুব্রত রায়ের প্রযোজনা সংস্থার কোনো ধারাবাহিকেরই শুটিং হয়নি।

গতকাল শুক্রবার আর্টিস্ট ফোরামের এক সভায় সিদ্ধান্ত হয় যে, আগামী ২৬ তারিখের মধ্যে সুব্রতকে টিডিএসের টাকা জমা দিতে হবে। ততদিন পর্যন্ত শুটিং বন্ধ থাকবে। এর ফলে টেলিকাস্ট নিয়ে সমস্যা তৈরি হতে পারে। সুব্রত রায়ের ইউনিট সূত্রে খবর, বেশ কয়েকটি এপিসোড ব্যাঙ্ক করা রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর আগে জানিয়ছিলেন, কোনও পরিস্থিতিতেই শুটিং বন্ধ রাখা যাবে না। কিন্তু দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে এছাড়া আর উপায় নেই বলে অবস্থান নিয়েছে আর্টিস্ট ফোরাম।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে, মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে শিল্পীদের টাকা দিতে হবে। কিন্তু সম্প্রতি এই আইনটিতে বদল এনেছে আর্টিস্ট ফোরাম। তাদের নতুন সিদ্ধান্ত  অনুযায়ী, এখন মাসের ২২ তারিখের মধ্যে শিল্পীদের প্রাপ্য টাকা পরিশোধ করতে হবে। এভাবে তারিখ পিছিয়ে নেপথ্যের কারণ নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে। প্রযোজকদের সুবিধা করে দিতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন অনেক শিল্পী। তবে দিনশেষে তারিখ পিছিয়েও পাওনা টাকা পাচ্ছেন না শিল্পীরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা