kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২২ আগস্ট ২০১৯। ৭ ভাদ্র ১৪২৬। ২০ জিলহজ ১৪৪০

পালক আকাশে উড়ে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ জুলাই, ২০১৯ ১০:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পালক আকাশে উড়ে

গল্পটা আশির দশকে চীনের ইয়ু শহরের সামাজিক বাস্তবতা নিয়ে। ওখান থেকে গল্পটা ছড়িয়ে যায় বড় বড় শহরে। চ্যান চিয়াং হো একজন অনাথ ছেলে। দুর্গম এক রাস্তার পাশে তাকে কুড়িয়ে পায় চ্যান জিন্সুয়ে। ওর নাম রাখা হয় জিমাও। জিমাওকে আদর স্নেহ দিয়ে বড় করে তোলেন জিন্সুয়ে। জিন্সুয়ে একজন পালক ব্যবসায়ী ছিলেন। কিন্তু জিমাও পালক ব্যবসা ছেড়ে চিনির ব্যবসায়ী হয়ে ওঠে। সময়ের আবর্তনে চ্যান চিয়াং হো একজন দক্ষ ব্যবসায়ী হয়ে ওঠে। দেশব্যপী তার নাম ছড়িয়ে পরে। 

তৎকালীন সমাজে ব্যবসায়ে পুঁজিপতিদের নিয়ন্ত্রন, ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীদের ভয়ানকভাবে আক্রমন করতো তার একটা সচিত্র প্রতিবেদন এই নাটকে ফুটে উঠেছে। আমরা চীন বলতে চীনের অর্থনীতিকেই বুঝি। আমাদের দেশে চীন নিয়ে যত প্রতিবেদন দেখি তার বেশিরভাগ অর্থনীতি নিয়ে। কিন্তু চীনের সমাজ সংস্কৃতি, প্রেম ভালবাসা, দৈনন্দিন জীবন নিয়ে একটি পরিপূর্ণ সামাজিক সিরিয়্যাল পালক আকাশে উড়ে। চায়না রেডিও ইন্টারন্যাশনাল এবং এটিএন বাংলা যৌথ প্রযোজনায় বাংলায় ডাবিংকৃত সিরিয়্যালটি গত ১৯ মার্চ ২০১৯ হতে এটিএন এ প্রতি রবি থেকে বৃহস্পতি রাত ৮:৪০ মিনিটে সম্প্রচারিত হচ্ছে। 

ইতোমধ্যে ৬০ টি পর্ব সম্প্রচার হয়েছে। ১১৬ পর্বের এ ধারাবাহিকটি বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

পালক আকাশে উড়ে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা