kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

বাংলা চলচ্চিত্রে প্রথম নারী গোয়েন্দা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ১১:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাংলা চলচ্চিত্রে প্রথম নারী গোয়েন্দা

 গোয়েন্দা গল্পের ওপর বাংলায় অসংখ্য সিনেমা হয়েছে। কলকাতার পরিচালক অরিন্দম শীলই গোয়েন্দা গল্পের উপর একাধিক ছবি বানিয়েছেন। এবার তাঁর হাত ধরেই বাংলা ছবিতে আসছেন প্রথম নারী গোয়েন্দা 'মিতিন মাসি'। ইতিমধ্যেই প্রকাশ্যে আনা হয়েছে 'মিতিন মাসি'র লুক। সাদা সুতির শাড়ি, মেরুন ব্লাউজ ও চোখে কালো বড়ো ফ্রেমের চশমা, এই লুকেই দেখা গেছে মিতিন মাসিকে।

এবার মিতিন মাসির আরও দুই লুক প্রকাশ্যে এনেছেন পরিচালক। পরিচালকের কথায় 'মিতিন মাসি' ভীষণই স্মার্ট একটা চরিত্র, সে সাহসী, বুদ্ধিমতী এবং সহানুভূতিশীল। আবার কাজের জায়গাতেও যথেষ্ঠ সক্রিয়। কোনও অংশেই ছেলেদের থেকে পিছিয়ে নেই এই চরিত্রটা। পরিচালকের কথায়, মিতিনকে আজকের নারী হিসাবেই তুলে ধরা হয়েছে। সে শাড়িও পরে আবার কাজের জায়গাতে মিতিনকে জিন্স ও  শার্টে দেখা গেছে। আবার কখনও মিতিনের পরনে দেখা গেছে জিন্স ও কুর্তি। 

মিতিন মাসির তিনটি লুকই নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন পরিচালক। ক্যাপশানে লিখেছেন, ডিটেকটিভ গল্প, থ্রিলার এসবে বরাবরই আমার আকর্ষণ বেশি। যখন মিতিন মাসি করার কথা মাথায় আসে তখনই অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ সামনে আসে। মিতিনকে পর্দাতে মিতিনের মত করে তুলে ধরা বেশ চ্যালেঞ্জিং ই ব্যাপার। 

প্রসঙ্গত, সোশ্যাল মিডিয়ায় মিতিন মাসির লুক নিয়ে পরামর্শ চেয়েছিলেন অরিন্দম শীল। সুচিত্রা ভট্টাচার্যের গল্পের পাঠকদের মতামত অনুসারেই সাজানো হয়েছে মিতিন মাসিকে। সুচিত্রা ভট্টাচার্যের লেখা প্রজ্ঞাপারমিতা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে হয়ত অনেক বাঙালিরই আলাপ রয়েছে। তবে সিনেমার পর্দায় প্রজ্ঞাপারমিতাকে তুলে আনার চেষ্টা এখনও পর্যন্ত কোনও পরিচালকই করেননি। সেক্ষেত্রে 'মিতিন মাসি' পর্দায় আনার প্রথম উদ্যোগ নিয়েছেন পরিচালক অরিন্দম শীলই। সুচিত্রা ভট্টাচার্যের 'হাতে মাত্র তিনদিন'-এর গল্প অবলম্বনে তৈরি হচ্ছে এই ছবি। কীভাবে চলছে শ্যুটিং তারও ঝলক মিলেছে প্রযোজনা সংস্থার ইউটিউব চ্যানেলে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা