kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনা সিনেমার জন্য ভালো স্ক্রিপ্ট খুঁজছেন দেব

অনিতা চৌধুরী, কলকাতা প্রতিনিধি    

১৫ জুলাই, ২০১৯ ২০:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনা সিনেমার জন্য ভালো স্ক্রিপ্ট খুঁজছেন দেব

টলিউড সুপারস্টার দেব ভারত-বাংলাদেশ যৌথ প্রযোজনায় সিনেমা বানানোর জন্য ভালো স্ক্রিপ্ট খুঁজছেন।

কালের কণ্ঠকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে একথা জানালেন তৃণমূল সাংসদ ও টলিউড সুপারস্টার। সম্প্রতি দেব প্রযোজনার কাজ শুরু করেছেন।

'আমি কালের কণ্ঠের মাধ্যমে এটাই বলতে চাই যৌথ প্রযোজনায় একটি ভালো স্ক্রিপ্ট যদি আমার কাছে আসে তাহলে আমি সেটা নিয়ে কাজ করতে চাই'

দেবের ধারণা যৌথ প্রযোজনায় কাজ যত বেশি হবে তত দুই দেশের সংস্কৃতি আদান-প্রদান বাড়বে।

কালের কণ্ঠের সাথে আলাপের সময় দেব বললেন, বাংলাদেশে অনেক ভালো কাজ হচ্ছে কিন্তু নানা জটিলতার কারণে কলকাতার মানুষ সেই ভালো কাজ দেখতে পান না।

'আমি চাই আরো কাজ হোক। আমি আমার প্রযোজনা করা ছবি ককপিটে বাংলাদেশ অভিনেতা রোশনকে নিয়েছিলাম ভবিষ্যতে আরও বাংলাদেশের অভিনেতা অভিনেত্রীদের সাথে কাজ করতে চাই।' বলেন দেব।

টলিউড এর কাছে বাংলাদেশ চিরকালই একটি বড় বাজার। গত কয়েক বছরে অধিকাংশ টলিউডের বাণিজ্যিক ছবি বাংলাদেশে অনেক বেশি ব্যবসা করেছে।

তবে শুধু বাণিজ্য নয় দেবের মতে আরো অনেক কারণ আছে তার বাংলাদেশ নিয়ে আগ্রহের পেছনে।

প্রথম কারণ হলো প্রতিভা যার অর্থ বাংলাদেশ বিনোদন জগতের সাথে যুক্ত মানুষের ভালো কাজ করার ক্ষমতা।

আর পরবর্তী কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে দেব বলে উঠলেন এমন দেশ কোথাও খুঁজে পাওয়া যাবে না।

'সারা দুনিয়াতে এমন দেশ নেই, আমি তিনবার গেছি ওই দেশে অভিনেতা হিসেবে এবং সাংসদ হিসেবে। আর প্রত্যেক বার মানুষের সারল্য আর ভালোবাসা আর আতিথেয়তা আমাকে মুগ্ধ করেছে।' বললেন দেব।

কথা প্রসঙ্গে দেব জানান, কিভাবে একবার তার ক্ষুধা নিবারণ করেছিলে অতিথিবৎসল বাংলাদেশের মানুষ।

'আমার এখন একটি ঘটনা খুব মনে পড়ে বুনোহাঁস এর শুটিং চলাকালীন বাংলাদেশের শুটিং ফ্লোরে আমার প্রচণ্ড খিদে পেয়েছিল। আমি আমার প্রোডাকশনকে সেটা জানাই এবং এই সময়ে যে বিল্ডিং এর শুটিং টা হচ্ছিল তার উপরের ফ্লোর থেকে একটি পরিবার আমার জন্য রান্না করে ১০ মিনিটের মধ্যে আমাকে খাইয়ে ছিল। তো, সেই আতিথিয়তা আমি কখনো ভুলব না। এতো ভালোবাসা পেয়েছি সেটা কখনো ভোলার মতো না।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা