kalerkantho

বুধবার । ২৪ জুলাই ২০১৯। ৯ শ্রাবণ ১৪২৬। ২০ জিলকদ ১৪৪০

বিচারকদের ওপর ক্ষিপ্ত ভক্তরা বললেন 'গোল্ডেন গিটারটা মিউজিশিয়ানদের দিন'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ জুন, ২০১৯ ১৫:৩৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অনুপম রায়ের জনপ্রিয় গান ‘আমাকে আমার মতো থাকতে দাও’ গেয়ে বেশ প্রশংসা পেয়েছিলেন নোবেল। অটোগ্রাফ চলচ্চিত্রের এই গানটি দুই বাংলার মানুষের কাছেই ব্যাপক জনপ্রিয়।  এপ্রিলের ওই এপিসোডে সারেগামাপার মঞ্চে অনুপম নিজেই উপস্থিত ছিলেন। এরপর ফের গাইলেন নোবেল অনুপমের আরেকটি গান 'একবার বল কেউ নেই তোর।' এই গানটি শ্রোতাদের নিকট দারুণভাবে গৃহীত হয়েছে।

রবিবার রাতে সারেগামাপা'র মঞ্চে নোবেল মাত করলেন। অনুপমের এই গান গেয়ে গোল্ডেন গিটার না পেলেও এর আগেই গাওয়া হিন্দি গানটিতে গোল্ডেন গিটার পেয়ে যান বাংলাদেশের ছেলে নোবেল। তবে ভক্তদের অভিযোগ অন্যখানে। যথারীতি বিচারকদের দিকে একঝাঁক তীর ছুঁড়ে দিলেন দেশীয় ভক্তরা। ভক্তদের ভাষ্যমতে পক্ষপাত থেকে বের হতে পারছেন সারেগামাপা'র বিচারকেরা। অন্তত সোশ্যাল মিডিয়ার ক্রমাগত অভিযোগ থেকে এটাই বোঝা যাচ্ছে।

নিলয় নামের এক ভক্ত লইখেছেন, 'গোল্ডেন গিটারটা না দিলে ও পারতেন, ওই মিউজিশিয়ান কে দিয়ে দিতেন। নোবেল ভালো গান গাইলেই সব ক্রেডিট মিউজিশিয়ানস দের,মানে কি ভাই তাহলে যে কেউ,যেভাবে খুশি গান গাইলেই হলো, মিউজিশিয়ানস রা ভালো বাজাইলেই গোল্ডেন গিটার, গায়ক কেমন গান গেয়েছে সেটা ম্যাটার করে না। এই তো। ভালো চালায় যান।

রানা নামের একজন লিখেছেন, 'মোনালির এখন কি হিংসা হচ্ছে নাকি বুঝলাম না। বিচারকদের মন্তব্যগুলো নোবেল এর গান এর তুলনায় অনেক নিম্নমানের মন্তব্য হয়েছে।'

মাহবুব নামের একজন লিখেছেন, 'একটা জিনিস বুঝিনা, নোবেলের পারফর্মেন্স এর পর অলওয়েজ আগে মিউজিশিয়ানদের প্রশংসা করা হয়, নোবেলের যেরকম ভয়েস তাতে তো মিউজিক না হলেও চলে বলে আমি মনে করি। আর অলওয়েজ দেখি নোবেলের প্রশংসার থেকে মিউজিশিয়ানদের প্রশংসা বেশি থাকে, অন্যদের বেলায় এটা দেখিনা।'

রুবেল নামের একজনের মন্তব্য, 'নোবেল এর পারফরম্যান্স ছিল অসাধারণ যাকে বলে ফাটাফাটি কিন্তু হয়ে কী লাভ? ইন্ডিয়া কখনোই এই মর্যাদা দিবে না, সেটা সবাই দেখেছি, তারপরও আশা রাখছি ফাইনালের লাস্ট রাউন্ডে পর্যন্ত যেন তার স্থানটা ধরে রাখে।'

এর আগে সারেগামাপাতে নোবেলের গাওয়া অনেকগুলো গান বেশ জনপ্রিয় হয়েছে। বিচারকদের কাছ থেকেও ঢাকার ছেলে নোবেল বেশ ভালো ভালো মন্তব্য পেয়েছেন। নোবেল সারেগামাপাতে তার গাওয়া জেমসের কালজয়ী ‘বাবা’ গানটির মাধ্যমেই সর্বপ্রথম জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রীতিমতো ভাইরাল হয়ে পড়ে সেই গানটি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা