kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ জুলাই ২০১৯। ৮ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৯ জিলকদ ১৪৪০

প্রথম 'ইন্ডিয়ান আইডল' অভিজিত কেমন আছেন?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ জুন, ২০১৯ ১৬:৩৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রথম 'ইন্ডিয়ান আইডল' অভিজিত কেমন আছেন?

আপনাদের নিশ্চই অভিজিত সায়ন্তকে মনে আছে? তিনি ২০০৫ সালে মিউজিক রিয়েলিটি শো ইন্ডিয়ান আইডল-এ বিজয়ী হয়েছিলেন। তার গাওয়া ‘মহব্বতে লুটাউঙ্গা‘ বিখ্যাত হয়ে যায়।

এরপর তিনি আরো বেশ কিছু রিয়েলিটি শো-তে অংশগ্রহণ করেন। ‘জো জিতা ওহি সুপারস্টার‘ অনুষ্ঠানে দ্বিতীয় স্থান পান তিনি এবং ‘এশিয়ান আইডল‘-এ তৃতীয় স্থান। এছাড়াও বেশ কয়েকটা বলিউডের ছবিতে প্লেব্যাকও করেছেন তিনি। ছোটপর্দায় তাকে শেষ দেখা যায় ২০০৮ সালে ‘নাচ বলিয়ে‘ তে। এই অনুষ্ঠানে তিনি একজন প্রতিযোগী ছিলেন। এছাড়াও তিনি ‘ইন্ডিয়ান আইডল ৫‘ সঞ্চালনা করেন।

বিভিন্ন রিয়েলিটি শোতে অংশগ্রহণ করে বেশ বিরক্ত অভিজিত। তাই ঠিক করেছেন নিজের একটা রিয়েলিটি শো আরম্ভ করবেন। ভারতীয় গণমাধ্যমকে তিনি বলেছেন ‘আমি এই নিয়ে কাজ করছি। কিন্তু এখনি কিছু বলা যাবে না। তবে এটা ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে হবে। কিছুদিন সময় লাগবে আমার প্ল্যানকে বাস্তব রূপ দিতে।'

কিন্তু এই অভিজিৎ সায়ন্তেরই কিছুদিন আগে অবধি ‘লাইকস‘‚ ‘ক্লিকস‘ আর ‘কমেন্টস‘-এ বিন্দুমাত্র ইনটারেস্ট ছিল না। কিন্তু এখন তিনি নিজেই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কাজ করতে চাইছেন। তার কথায় 'আগে আমি শুধুমাত্র অ্যালবাম রিলিজ করতে চেয়েছিলাম। অনলাইনে সিঙ্গল গান রিলিজ করার ইচ্ছা একেবারেই ছিল না। আমার গানগুলো কীভাবে ভাইরাল করবো তাও ভাবিনি কোনদিন। কিন্তু এখন বুঝতে পেরেছি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কতটা স্কোপ আছে।'

কয়েক বছর আগে অভিজিৎ ইউটিউবে নিজের চ্যানেল খুলেছেন। সেখানে তিনি তার গাওয়া একটা অ্যালবাম ‘ফরিদা‘ আবার রি লঞ্চ করছেন। এই অ্যালবাম ২০১৪ সালে মুক্তি পেয়েছিল। এছাড়াও ২০১৮ সালে মুক্তি পেয়েছে তার গাওয়া ‘ফকিরা‘ সিঙ্গল যা ইউটিউবে খুবই হিট হয়।

অভিজিৎকে বেশ কয়েকটা বি-টাউনের ছবিতে অভিনয় করতেও দেখা গেছে। বড়পর্দায় তাকে শেষ দেখা যায় ২০০৯ এর মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘লটারি‘-তে। এরপর কেন আর তিনি অভিনয় করলেন না সেই ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, 'আমি প্লেব্যাক করতে চাই। নিজের গানের অ্যালবাম বের করতে চাই। কিন্তু অভিনয় করলে এইসব করার সময় থাকে না।'

২০০৯ সালে তিনি শিবসেনা-র সঙ্গে যুক্ত হন। তিনি বলেন, 'এই দলের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমি খুব খুশি। তবে আমি অ্যাকটিভ মেম্বার নই। আমি কেরিয়ারের শুরুতে এই দলে যোগ দিয়েছিলাম। তখন কেউ এমন ছিল না যে আমাকে বোঝাতে পারতো আমার জন্য কোনটা ঠিক এবং কোনটা ভুল। শিবসেনা মেম্বারদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুবই ভালো। কিন্তু আমি রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হতে চাই না। আমার ফোকাস শুধুমাত্র মিউজিক।'

ইন্টারনেট থেকে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা