kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

'কাল আপনারা কি আমাকে মৃত দেখতে চান?'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'কাল আপনারা কি আমাকে মৃত দেখতে চান?'

অনেকেই বলছেন আমাকে যে আমি নিজেকে কেন জীবিত নুসরাত বললাম, আমি নিজেকে কী বলবো আমি তো এখনো মরি নাই। নুসরাতের সাথে একটা ঘটনা ঘটনার পর তাঁকে জ্বালিয়ে দেয়া হলো। আমাকে এখনো মকেরে ফেকা হয় নাই, আমি জীবিত থেকেও ক্রমেই মরে যাচ্ছি। হয়তো যে কোনো মুহূর্তে আমাকে মেরেও ফেলা হতে পারে। হয়তো আমি মারা যাই নাই, এখনও মেরে ফেলা হয় নাই বলে আমার পাশে দাঁড়াচ্ছেন না আপনারা। তাহলে কি আপনারা কাল আমাকে মৃত দেখতে চান?

বুধবার রাজধানীর বেইলি রোডের ক্যাফে থার্টি থ্রি রেস্টুরেন্টে সাংবাদিক সম্মেলনে এমন আক্ষেপ, আবেদন মেশানো কণ্ঠে এসব বলেন কণ্ঠশিল্পী মিলা। এসময় মিলার পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

২০১৭ সালের মে মাসে পারিবারিকভাবে বৈমানিক পারভেজ সানজারির সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন মিলা। বিয়ের পর সঙ্গীত সাধনায় হয়ে পড়েন অনিয়মিত। জড়িয়ে যান সংসার জীবনের দ্বন্দ্ব-বিবাদে। নারী নির্যাতন-যৌতুকের অভিযোগ এনে স্বামী সানজারির বিরুদ্ধে মামলাও করেন তিনি। সবশেষ সংসার জীবনের ইতি টানেন পপ গানের এই শিল্পী।

মিলা বলেন, আজ আমি ও আমার পরিবার আপনাদের সামনে উপস্থিত হয়েছি। আমার ভালো-খারাপ সব সময়ের সাক্ষী আপনারাই। তাই ন্যায়বিচার পেতে আপনাদের সবাইকে আমার পাশে থাকার জন্য বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।

মিলা বলেন, আমার মামলারে চার্জশিট পরিবর্তন করে ফেলা হয়েছে। আমি অনেকের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছি। যার কাছেই যাই, তারাই আমার বিপক্ষে চলে যায়। ওরা সবাইকে এভাবে হাত করে নিচ্ছে, আমাকে জিততে দেবে না। আজ আমি নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় কেন আপনাদের সামনে উপস্থিত হয়ে বিচার চাইবো। এসেছি কারণ চার্জশিট পরিবর্তন করে ফেলা হয়েছে।

মিলার বাবা অবসরপ্রাপ্ত লেফটন্যান্ট জেনারেল শহিদুল ইসলাম, মা ও ছোট বোন দিশাও সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে কথা বলেন।

মন্তব্য