kalerkantho

শনিবার । ২৫ মে ২০১৯। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৯ রমজান ১৪৪০

কঙ্গনাকে স্যান্ডেল ছুঁড়ে মেরেছিলেন মহেশ ভাট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কঙ্গনাকে স্যান্ডেল ছুঁড়ে মেরেছিলেন মহেশ ভাট

মহেশ ভাট কঙ্গনা রানাওয়াতকে স্যান্ডেল ছুঁড়ে মেরেছিলেন। এবার এমনই গুরুতর অভিযোগ তুললেন কঙ্গনার বোন রঙ্গোলি চান্দেল। সম্প্রতি বিভিন্ন কারণে একাধিকবার আলিয়ার নানাভাবে সমালোচনা করেছেন কঙ্গনা। 
সম্প্রতি আলিয়ার মা সোনি রাজদানকেও আক্রমণ করেন রঙ্গোলি। এর পালটা জবাবও দেন সোনি। কিন্তু, তারপরও থামতে নারাজ কঙ্গনার বোন। 

রঙ্গোলি লেখেন, এই বিদেশিরা দেশে থাকবে, ব্যবহার করবে এবং দেশের মানুষকেই হেনস্থা করবে। অসহিষ্ণুতা ছড়াতে মিথ্যে ছড়াবে। সময় এসেছে এদের অ্যাজেন্ডা নিয়ে ভাবার। এবং এদের দ্বারা প্রভাবিত না হওয়ার। 

এর পালটা সোনি লেখেন, যে কঙ্গনাকে কাজ দিল তাঁর স্ত্রী ও মেয়ের আক্রমণ করছে কঙ্গনা। এরপর থেকেই একাধিক টুইটে নানাভাবে রঙ্গোলি মহেশ ভাট, সোনি রাজদান ও আলিয়াকে আক্রমণ করে আসছেন। রঙ্গোলি লেখেন, প্রিয় সোনিজি, মহেশ ভাট নয় ওকে ব্রেক দিয়েছিল অনুরাগ বসু। মহেশ ভাটজি ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর ছিলেন ওই ছবির। 

এখানেই থামেননি রঙ্গোলি। তিনি লেখেন, মনে রাখবেন উনি (মহেশ ভাট) ওই প্রোডাকশন হাউজটি কিনে নেননি। 'ও লমহের...' পর উনি কঙ্গনাকে নিয়ে ধোকা নাম একটি ছবি বানাতে চেয়েছিলেন, কিন্তু কঙ্গনা রাজি হয়নি। তাই ও শুধু কঙ্গনার উপর চিৎকারই করেনি, ও লমহের প্রিভিউতে হলের মধ্যে স্যান্ডেল ছুঁড়ে মেরেছিল। এমনকী ওকে সেখানে আসার অনুমতি পর্যন্ত দেয়নি। ও তখন মাত্র ১৯ বছরের ছিল।

মন্তব্য