kalerkantho

মঞ্চস্থ হলো দুই বাংলার যৌথ প্রযোজিত নাটক 'জলকুমারী'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ মার্চ, ২০১৯ ১৯:৩৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মঞ্চস্থ হলো দুই বাংলার যৌথ প্রযোজিত নাটক 'জলকুমারী'

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হলো দুই বাংলার যৌথ প্রযোজিত নাটক জলকুমারী।

সেই নাটকটি ইতোমধ্যেই ভারতের হুগলী জেলাতে উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়েছে কিন্তু গতকাল সোমবার বাংলাদেশে এই প্রথমবার পুনরায় উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হলো। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন  সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট এর সভাপতি গোলাম কুদ্দুস বিশিষ্ট আবৃত্তি শিল্পী ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, সেক্রেটারি জেনারেল বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন এর কামাল বায়েজিদ, বাংলাদেশ পথ নাটক পরিষদ এর সাধারণ সম্পাদক আহমেদ গিয়াস, ভারতের সহজপাঠ থিয়েটার এর দলপ্রধান প্রদীপ কুমার মাইতি, বাংলাদেশ মেঠোপথ থিয়েটারের দলপ্রধান শামীমা আক্তার মুক্তা ও জল কুমারী নাটকের রচয়িতা এবং নির্দেশক দেবাশীষ ঘোষ।

জল কুমারী নাটক সম্পর্কে লেখক এবং নির্দেশক বলেন, জলকুমারী প্রযোজনাটি প্রচলিত নিয়মের বেড়াজাল ভেঙে নতুন পদ্ধতিতে প্রযোজনা করার অনুসন্ধান মাত্র। জলকুমারী গল্পটি লোক সাহিত্যের লোক আখ্যান সেই গল্পকে আধুনিক উপস্থাপন করা হয়েছে মাত্র। আজকের সমাজ ব্যবস্থায় নারীদের যে দৃষ্টিকোণ থেকে মূল্যায়ন করা হয় আজ থেকে দুই তিনশো বছর পূর্বে তেমনি ছিল অনুসন্ধান করা হয়েছে মাত্র 'জন্মই যেন আজন্ম পাপ'। এই সত্যটি এখনো দৃশ্যমান কিন্তু এই নারী সমাজের ভালোর জন্য আত্মাহুতি দিয়ে যায় এই কথাটি জল কুমারী নাটকের মূল কথা।

সর্বশেষ সর্বশেষ মেঠোপথ থিয়েটারে দলপ্রধান শামীমা আক্তার মুক্তা জানান ভারত ও বাংলাদেশের কলাকৌশলী মিলে মোট ১০ জন এই নাটকে অভিনয় করেছেন মেঠোপথ থিয়েটার, বাংলাদেশ সহজপাঠ থিয়েটার ভারতের শিল্পীরা মিলে বাংলাদেশ ও ভারতের বিভিন্ন জায়গায় এই নাটকের প্রদর্শনী করবেন নাটকের নাম নাটক ও নির্দেশনায় আছেন বাংলাদেশের নির্দেশক দেবাশিস ঘোষ। নাটকটির সংগীত পরিকল্পনায় ছিলেন শিশির রহমান (বাংলাদেশ), সেট ও লাইট ডিজাইনে ছিলেন পলাশ হেনড্রি সেন (বাংলাদেশ), পোশাক পরিকল্পনায় শামীমা আক্তার মুক্তা (বাংলাদেশ)।

নাটকটিতে অভিনয় করেছেন শামীমা আক্তার মুক্তা (বাংলাদেশ), প্রদীপ কুমার মাইতি (ভারত), তরুণ চ্যাটার্জী (ভারত), তারক ব্যানার্জি( ভারত), কাজী সালিমুল হক কামাল (বাংলাদেশ), সুজন মুখার্জী (ভারত), মো. নাজিরুল ইসলাম আপন (বাংলাদেশ), তরুণ কুমার দে (ভারত) ,সুমন ব্যানার্জি (ভারত)।

মন্তব্য