kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২২ আগস্ট ২০১৯। ৭ ভাদ্র ১৪২৬। ২০ জিলহজ ১৪৪০

সম্ভাবনা জাগিয়েও পারলেন না ঐশী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৫:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সম্ভাবনা জাগিয়েও পারলেন না ঐশী

আশা ছিল, চেষ্টা ছিল। হেড টু হেড চ্যালেঞ্জ টপকে ফাইনালের মঞ্চেও ছিল পাদচারণা। কিন্তু মিস ওয়ার্ল্ডের মুকুট জেতা হলো না বাংলাদেশি মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশীর।

বাংলাদেশের মানুষের জন্য এটি হতাশার সংবাদ হলেও, আশার কথা হলো বাংলাদেশের কোনও প্রতিযোগী ‘মিস ওয়ার্ল্ড’-এ সেরা ৩০ নির্বাচিত হয়ে ফাইনালের মঞ্চে উঠেছে।

শনিবার সন্ধ্যায় চীনের সানইয়াহ শহরে শুরু হয়েছে বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফিনালে। সেখানে সেরা ১০ থেকে সেরা ১২ নির্বাচন করা হলে বাদ পড়েন ঐশী।

গত বছর বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ থেকে অংশ নেন জেসিয়া ইসলাম। সেবার সেরা ৪০-এ জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু হেড টু হেড চ্যালেঞ্জ পর্বে ছিটকে যান। তবে সবাইকে চমকে দিয়ে ঐশী জায়গা করে নেন সেরা ৩০-এ।

ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড 'মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ' ২০১৮ নির্বাচিত হয়েছেন জান্নাতুল ফেরদৌসী ঐশী। প্রথম রানার আপ নিশাত নাওয়ার সালওয়া এবং দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছেন নাজিবা বুশরা। মুকুট জয়ের পাশাপাশি বেস্ট অ্যাপিয়ারেন্স অ্যাওয়ার্ডও পেয়েছেন ঐশী।

জান্নাতুল ফেরদৌসী ঐশী পিরোজপুরের মেয়ে। এক মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম নেওয়া জান্নাতুল ফেরদৌসী ঐশী চলতি বছরের এইচএসসি শেষ করে জুলাই মাসে ঢাকায় এসেছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং করার জন্য। যখন চোখেমুখে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির লড়াইয়ের স্বপ্ন তখনই খোঁজ পান মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৮ এরে আবেদন করার খবর। 

কৌতুহল আর আগ্রহ মাথার চিন্তাকে যেন কিছুটা এলোমেলোই করে দিল। আবেদন করে বসলেন। দেখতে দেখতে মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের চূড়ান্ত পর্বে জায়গা করে নিলেন। সেরা দশে জায়গা পাওয়ার পর নিজের আত্মবিশ্বাস আরও বেড়ে যায়। 

গত ৩০ সেপ্টেম্বর মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-এর গ্র্যান্ড ফিনালেতে চ্যাম্পিয়ন হন ঐশী। অন্তর শোবিজের আয়োজনে সেদিন সেরা ১০ সুন্দরীর মধ্য থেকে তাকে সেরা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়। এরপর তিনি বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা