kalerkantho

শনিবার । ২৪ আগস্ট ২০১৯। ৯ ভাদ্র ১৪২৬। ২২ জিলহজ ১৪৪০

কে রুপম, কেন আলোচনায়?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ আগস্ট, ২০১৬ ১৬:১৪ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



কে রুপম, কেন আলোচনায়?

পুরো নাম রুপম ইসলাম। কলকাতায় এই গায়কের বেড়ে ওঠাই মাইলসের গান শুনে। শাফিনের কণ্ঠের জাদুতে মুগ্ধ হতেন। শাফিনে কেন মুগ্ধ ছিলেন? সে প্রসঙ্গে পরে আসছি। সম্প্রতি বাংলাদেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড মাইলসের বিরুদ্ধে 'অপপ্রচার' চালিয়ে সামনে আসেন তিনি।

ফসিলস-এর শুরুটা ১৯৯৮ সালে। ব্যান্ডের নাম ফসিলস হওয়ার কারণ প্রসঙ্গে রূপম বললেন, ''রক গান তখন শ্রোতারা খুব একটা গ্রহণ করছিল না। তার পরও আমরা রক গান নিয়েই এগিয়েছি। আমাদের কাছে রক মিউজিককে মনে হয়েছিল আগামী প্রজন্মের গান। নানা ধরনের চাপ নিতে নিতে লিখেছিলাম খোঁড়ো আমার ফসিল, অনুভূতির মিছিল/প্রতিক্রিয়াশীল কোনো বিপ্লবে, শোনো তুমি কি আমার হবে?। এখান থেকেই ফসিলস নামটা নির্বাচন করা হয়। ফসিলসের অনুপ্রেরণা ছিল বাংলাদেশের রক ঘরানার মিউজিক।'' 

ফসিলস-এর ম্যানেজার রূপসা দাশগুপ্ত বুধবার এক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে বলেন, ''আমরা কিন্তু মাইলসের গান শুনেই বড় হয়েছি, ওদের খুব ভক্ত আমরা। হামিন ভাই বা শাফিন ভাই কেউই যেহেতু আমাদের ফেসবুক বন্ধু নন, তাই আমরা আগে উনাদের পোস্টগুলো দেখিনি।''

রুপমের প্রথম অ্যালবাম 'তোর বর্ষাতে' বাজারে আসে ১৯৯৮ সালে। ওই অ্যালবামটি ২০০৩ সালে 'নীল রং ছিল ভীষণ প্রিয়' নামে আবার বাজারে ছাড়া হয়। গানগুলো জনপ্রিয় হওয়ায় ২০০৭ সালে নতুন মোড়কে অ্যালবামটি আবার বাজারজাত করে সারেগামা এইচএমভি।

২০০৩ সালে শাফিন আহমেদ ও মাইলস কলকাতায় গেছেন কনসার্ট করতে। যে হোটেলে ছিলেন, সেখানে এলেন ফসিলসের সদস্যরা। দেখা করতে চান শাফিনের সাথে। কিন্তু তখন বেশ ব্যস্ত শাফিন। বেশকিছু কাজ। ইতিমধ্যে কয়েক ঘণ্টা চলে গেছে। তারপরও ফসিলসের রুপমরা শাফিনের সাথে দেখা না করে যাবেন না। কেন না তাদের প্রথম অ্যালবামটি শাফিনের হাতে না দিতে পারলে যেন তাঁদের কাজের স্বার্থকতা। তিন থেকে চার ঘণ্টা পর শাফিন-হামিনরা হোটেলের লবিতে নেমে এলে তাঁরা নিজেদের অ্যালবাম ওঁদের হাতে তুলে দেন। অবশ্য সেই অ্যালবামের গানগুলো জনপ্রিয়তা পায়।

মহানগর অ্যাট কলকাতা ছবিতে গান গেয়ে নেপথ্য গায়ক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন রূপম। জানালেন, এখন চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ, সুর ও সংগীত পরিচালনা করছেন রুপম। ২০১১ সালে বাংলাদেশে এসে দেশ টিভির আগের রাতের অনুষ্ঠান নিয়ে রূপম বলেন, ''অনেকেই ফোন করে ফসিলস-এর জনপ্রিয় গানগুলোর জন্য অনুরোধ করেছেন। ভাবতেই পারিনি, বাংলাদেশে আমাদের গানের এত শ্রোতা আছেন। এবারের সফরটা অনেক দিন মনে থাকবে।'' কিন্তু রুপম মাইলসকে আঘাত করে তার ভক্তদের মনেই আঘাত করেছেন। ফেসবুকে ইভেন্ট খুলে সেই ফসিলসকে প্রত্যাখ্যান করছে।

শাফিন আহমেদে কালের কণ্ঠকে বলেন, ''আমরা কাউকে ছোট করতে চাই না। বিষয়টা নিয়ে তেমন মাথা ঝামাচ্ছি না। আমাদের কোন জায়গাটা দেশপ্রেমের আর কোথায় কি বলা দরকার সেটা ভিডিও বার্তায় বলেছি।''

বাংলাদেশি ব্যান্ড মাইলস-এর কয়েকজন সদস্য ধারাবাহিকভাবে ভারতবিরোধী মন্তব্য করেন এই অভিযোগে কলকাতার ফসিলস ব্যান্ডের রুপমের উসকানিতে সামাজিক মাধ্যমে প্রচারণায় কলকাতায় তাদের নির্ধারিত অনুষ্ঠানটি বাতিল করা হয়। আর এ নিয়ে বাংলাদেশের সোশ্ল মিডিয়া সরগরম। অনেকেই রুপমের নাম প্রথম শুনেছেন ফেসবুক ইভেন্টে এমনটাই জানাচ্ছেন।

রূপমের জন্ম ১৯৭৪ সালের ২৫ জানুয়ারি, কলকাতায়। গানে হাতেখড়ি মা-বাবার কাছে। ছোটবেলা থেকেই কলকাতা আকাশবাণীতে নিয়মিত গাইতেন। মাত্র ৪ বছর বয়সে প্রথম মঞ্চে গান করেন মা-বাবার সঙ্গে। শুরুটা যদিও ভারতীয় শাস্ত্রীয় ধারার গান দিয়ে, পরে প্রজন্মের চাহিদা এবং নিজেকে সম্পূর্ণভাবে খুঁজে পাওয়ার জন্য রক ধারার সংগীতচর্চা শুরু করেন। এই জায়গাতেই বাংলাদেশের ব্যান্ডগুলো রুপমকে প্রভাবিত করে। যেটা রুপম বিভিন্ন সময় বলেছেন। এমনকী ২০১১ সালে বাংলাদেশে টিভি লাইভ কনসার্টে এসে এ কথা বলেন রুপম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা