kalerkantho

রবিবার । ২১ আষাঢ় ১৪২৭। ৫ জুলাই ২০২০। ১৩ জিলকদ  ১৪৪১

আমব্রিনের প্রথম 'ক্রাশ' আফ্রিদি!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৫ ১০:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমব্রিনের প্রথম 'ক্রাশ' আফ্রিদি!

গতকাল বৃহস্পতিবার নিজ দায়িত্ব পালনের সময় কোনো এক ফাঁকে সিলেট সুপারস্টার্সের হয়ে খেলতে আসা পাকিস্তানি খেলোয়াড় শহিদ আফ্রিদির সাথে দেখা হয়ে যায়। এসময় তিনি দায়িত্ব শিকেয় তুলে সেলফি তুলে ফেলেন। এখানেই শেষ হলেও কথা ছিল। এরপরে আফ্রিদির সাথে সেই উচ্ছ্বসিত ছবি আমব্রিন তাঁর নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে পোস্ট করেন, ক্যাপশনে লেখেন, 'আমি তাঁকে ভালোবাসি স্কুল জীবন থেকে'  তিনি আমার জীবনের প্রথম প্রেম  ক্রাশ। আমব্রিন গর্বের সাথে জানান, সেই সময় তিনি, পড়তেন ভিকারুন্নিসা স্কুলে। আআর এ জন্য ম্যাডাম আমব্রিনকে রীতিমতো টিসি দিয়েছিলেন!

১৯৯৮ সালের ঘটনা। একটি জাতীয় দৈনিকের স্পোর্টস রিপোর্টার 'এ কেমন রুচি' শিরোনামে লিখেছে,
'একটি বিশেষশ্রেণির বিরুদ্ধে রুচিবিকৃতির যেসব অভিযোগ রয়েছে তা মিথ্যে নয় তার প্রমাণ রবিবার ঢাকার ক্রিকেট মাঠেও পাওয়া গেছে। সুবেশি এক তরুণীর হাতে ধরা প্লেকার্ডে ইংরেজিতে লিখা ছিল ‘আফ্রিদি প্লিজ মেরি মি। নীতিবোধের শিকড় ধরে টানমারার ঘটনা। যুবতীর এ আকুল আবেদন টিভিতে কেবল দেশ নয়, বিদেশের মানুষরাও দেখলেন।'  ওই ঘটনার পর সারাদেশে তোলপাড় শুরু হয়।

হ্যাঁ, আফ্রিদির প্রেমে এদেশের কিছু তরুণীরা মগ্ন হয় এবং তাঁর প্রকাশটাও অদ্ভুত। তখন সোশ্যাল মিডিয়া ছিল না। এখন সোশ্যাল মিডিয়া এসেছে প্রকাশের ভঙ্গি বদলেছে। আমব্রিন যেন সেই ভঙ্গিটাই নিলেন। আফ্রিদির সাথে তাঁর এই ছবিকে বিপিএলের সবচেয়ে 'স্মরণীয়' বলেও উল্লেখ করেছেন উপ্সথাপিকা আমব্রিন।

তবে আমব্রিনের এই প্রকাশভঙ্গিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তরুণ প্রজন্মরা। একজন আমব্রিনের ওই ছবির নিচেই একাত্তরের গণহত্যার ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, 'ম্যাডাম যদি ৭১ না দেখে থাকেন তবে এক পলক দেখে রাখুন আফ্রিদির বাপ দাদারা কি করেছিল।' 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা