kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

কুমিল্লায় রাতে ভোট দেওয়ার অভিযোগে নির্বাচন স্থগিত

বিভিন্ন স্থানে হামলা-সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ১২

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা    

৩১ মার্চ, ২০১৯ ১৯:৫৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কুমিল্লায় রাতে ভোট দেওয়ার অভিযোগে নির্বাচন স্থগিত

অনিয়মের অভিযোগ আর হামলা-সংঘর্ষের মধ্যে দিয়ে কুমিল্লা ৬টি উপজেলায় নির্বাচন ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার জেলার ৭টি উপজেলা পরিষদে নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও রাতে ভোট দেওয়ার অভিযোগ এবং দিনে ভোটকেন্দ্র দখলের চেষ্টা ও সহিংসতায় তিতাস উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। এ ছাড়াও নির্বাচন চলাকালে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় হামলায় ও সংঘর্ষে আহত হয়েছেন অন্তত ১২ জন।

আজ রবিবার সকাল ৮টায় কুমিল্লার ৭টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে নির্বাচন ঘিরে ভোটারদের তেমন আগ্রহ লক্ষ্য করা যায়নি। সকাল থেকেই প্রায় প্রতিটি কেন্দ্র ছিলো ফাঁকা। এর মধ্যে দুপুরে কুমিল্লা তিতাস উপজেলার মাছিমপুর আর আর ইন্সটিটিউট কেন্দ্রে কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ফরহাদ হোসেন ফকিরকে মারধর ও লাঞ্চিতের ঘটনা ঘটে। অপরদিকে কুমিল্লা বুড়িচং রাজাপুর ইউনিয়নের বারেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুর্বিত্তদের হামলায় পুলিশসহ ১০ জন আহত, ভোট গ্রহণ ২ ঘণ্টা বন্ধের পর পুনরায় চালু হয়।

এদিকে দুপুরে তিতাস উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমানে বিদ্রোহী প্রার্থী পারভেজ সরকার (আনারস) নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেন। তিনি অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর লোকজন রাতেই ব্যালট পেপারে সিল মেরে রাখেন এবং দিনে ভোট শুরু হওয়ার পর বিভিন্ন কেন্দ্র দখলে নিয়ে নেন। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুরো তিতাস উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করা হয়।

এদিকে কুমিল্লা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও রিটার্নিং অফিসার কাইজার মোহাম্মদ ফারাবী জানান, কুমিল্লা জেলার তিতাস উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে অনিয়ম সংঘটিত হওয়ার কারণে ন্যায়সঙ্গত, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালনা না হওয়ায় পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নির্বাচন স্থগিত রাখার জন্য নির্বাচন কমিশনার আদেশ প্রদান করেন।

এ ছাড়াও চান্দিনা  ভোটের ব্যালট বক্সসহ গল্লাই নবাবপুর ইউপি চেয়ারম্যান আটক, কেন্দ্র স্থগিত। কুমিল্লার চান্দিনা মেহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আনারস-নৌকার সমর্থকদের সংঘর্ষ পুলিশের ফাঁকা গুলি, আটক করা হয় ৩ জনকে। 

জানা যায়, কুমিল্লার তিতাস উপজেলা নির্বাচনে ১০ টি কেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগ করে পুর্ননির্বাচন চেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী পারভেজ হোসেন সরকারের সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

তিতাস উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা রাশেদা আক্তার জানান, গভীর রাতে উপজেলার ভিটিকান্দি, দাসকান্দি ও বন্দারামপুর ভোটকেন্দ্র দখল ও জোরপূর্বক ব্যালট ছিনিয়ে নিয়ে সিল মারার চেষ্টার খবরে সেখানে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দেয়। তাই সুষ্ঠুভাবে সেখানে ভোট গ্রহণের পরিবেশ না থাকায় রবিবার সকালে ভোটের সকল সরঞ্জাম উপজেলা সদরে নিয়ে আসা হয় এবং নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

ভোটারদের উপস্থিতি না থাকার কারণে মেঘনা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে যেতে মসজিদের মাইকে আহবান করা হয়েছে। এ নির্বাচনে বড় ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা