kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১২ রবিউস সানি     

পাকুন্দিয়ায় নিরুত্তাপ ভোটগ্রহণ

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৪ মার্চ, ২০১৯ ১৫:৪৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পাকুন্দিয়ায় নিরুত্তাপ ভোটগ্রহণ

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার নির্বাচনে নেই কোনো আমেজ, চলছে নিরুত্তাপ ভোটগ্রহণ। অধিকাংশ ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের কোনো লাইন চোখে পড়েনি। টুকটাক ভোটার আসছেন, ভোট দিয়ে চলে যাচ্ছেন। নির্বাচন নিয়ে ভোটারদের এমন অনাগ্রহ দেখে প্রার্থীসহ তাদের কর্মী-সমর্থকরা হতাশ হয়ে পড়েন। এ অবস্থায় নির্বাচনসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ ও আনসার সদস্যরা অলস সময় পার করছেন। আজ রবিবার সকাল থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত সরেজমিনে গিয়ে বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।  

সরেজমিনে বেলা সাড়ে ১১টায় পৌরসদরের ১০৫ নম্বর উত্তরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, ভোট কেন্দ্র ফাঁকা। টুকটাক ভোটাররা আসছেন। ভোট দিয়ে চলে যাচ্ছেন। ভোটারদের কোনো সারি চোখে পড়েনি। এ কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মো. রফিকুল ইসলাম জানান, ৫টি ভোটকক্ষে ভোট পড়েছে ১৭৭টি। এখানে মোট ভোটার ২০৬২।

পৌরসদরের পাকুন্দিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের পুরুষ ভোটকেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, কিছুক্ষণ পরপর দু-একজন ভোটার আসছেন এবং ভোট দিয়ে চলে যাচ্ছেন। এ সময় ভোটারদের কোনো সারি চোখে পড়েনি। এ কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিসাইডিং অফিসার মো. ওয়াহিদুজ্জামান জানান, দুপুর ১২টা পর্যন্ত ৮টি ভোট কক্ষে ৫৪০টি ভোট পড়েছে। এ কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ২৪৫১। একই বিদ্যালয়ের নারী ভোটকেন্দ্রে গিয়ে জানতে চাইলে প্রিসাইডিং অফিসার মাসুদুর রহমান জানান, দুপুর ১২টা পর্যন্ত ৭টি ভোটকক্ষে ২৫০টি ভোট পড়েছে। এ কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ২৫৫৯।

বেলা সাড়ে ১২টার দিকে বিভিন্ন কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার সৈয়দগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট পড়েছে ৪০০টি, এখানে ভোটার সংখ্যা ২৮২২। জাঙালিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ২১৩১, ভোট পড়েছে ৩০০টি, কালিয়াচাপড়া চিনিকল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ৩৪২৭, ভোট পড়েছে ২৫০, নূর হোসাইনিয়া আলিম মাদরাসা কেন্দ্রে মোট ভোটার ২২৬৮, ভোট পড়েছে ২১৫, হোসেন্দী উচ্চ বিদ্যালয়ের পুরুষ কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ৩৬৭২, ভোট পড়েছে ৩০৩, নারী ভোটকেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ২৯৬৪ ভোট পড়েছে ২০৯, মির্জাপুর শহীদ আলাউদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ে পুরুষ ভোটার ২৬০০ ভোট পড়েছে ৫৩৯ এবং নারী ভোটকেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ২৭১২ এর মধ্যে ভোট পড়েছে ৪৫০টি। 

নির্বাচনে টিয়া প্রতীকের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. নেকবর আলী মাস্টার জানান, ভোটারের উপস্থিতি খুবই কম। তবে বিকেলের দিকে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়বে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

এ উপজেলায় ৭৬টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। মোট ভোটার সংখ্যা এক লাখ ৮৭ হাজার ৩৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯২ হাজার ৮০৬ জন এবং নারী ভোটার ৯৪ হাজার ২৩৩ জন। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দুজন, পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে আটজন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয়জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। 

শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ সম্পন্নের লক্ষ্যে পুলিশের ২১টি মোবাইল টিম ও ২টি স্ট্রাইকিং টিম, বিজিবির ৪টি ও র‌্যাবের ২টি টিম সার্বক্ষণিক টহলরত। এ ছাড়াও প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে দুজন করে পুলিশ ও আনসার সদস্য ভোটগ্রহণ শেষ না হাওয়া পর্যন্ত সশস্ত্র অবস্থায় মোতায়েন রয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা