kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

মির্জাপুরে দলীয় প্যানেল না করার নির্দেশ জেলা আওয়ামী লীগের

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

১৯ মার্চ, ২০১৯ ২১:১৮ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



মির্জাপুরে দলীয় প্যানেল না করার নির্দেশ জেলা আওয়ামী লীগের

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্যানেল না করার নির্দেশ দিয়ে চিঠি দিয়েছে টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ। আজ মঙ্গলবার টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক স্বাক্ষরিত দলীয় প্যাডে মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সধারণ সম্পাদককে এ সম্পর্কিত একটি চিঠি দিয়েছেন। এ উপজেলায় মীর এনায়েত হোসেন মন্টুকে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন দেয়।

এদিকে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মীর এনায়েত হোসেন মন্টুর পাশাপাশি দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ প্যানেল ঘোষণা করে একসাথে প্রচারণা চালাতে থাকে। মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্যানেল না করার নির্দেশনা দিয়ে মঙ্গলবার টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পদকে চিঠি দেন।

জেলা আওয়ামী লীগের চিঠি প্রচারের পর মির্জাপুরে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের চিঠিটি উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে লাগানো এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলেও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ পাননি না বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মীর এনায়েত হোসেন মন্টুকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন দেন। উপজেলা নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয়ে মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ গত ৭ মার্চ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. একাব্বর হোসেনের বাসভবন চত্ত্বরে বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করে। সে সভায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে নেতাকর্মীদের কাজ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

অন্যদিকে একই সভায় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্দেশ উপেক্ষা করে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সঙ্গে নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে শামীমা আক্তার শিফা এবং আজহারুল ইসলামকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্যানেল ঘোষণা দিয়ে নেতাকর্মীদের কাজ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

অপরদিকে উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক মো. সেলিম সিকদার ও উপজেরা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সালমা সালাম উর্মিকে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের সুপারিশ করা হয়। এ নিয়ে দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ও তাদের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। সেলিম সিকদার ও সালমা সালাম উর্মি তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করে কর্মীদের সাথে নিয়ে উপজেলার সর্বত্র সভা সমাবেশের মাধ্যমে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

মঙ্গলবার টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক স্বাক্ষরিত দলীয় প্যাডে ভাইস চেয়ারম্যান পদে উন্মুক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। প্রচারণার ক্ষেত্রে ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার, লিফলেট বা হ্যান্ডবিলে কোনো প্রার্থীই দল মনোনীত, দল সমর্থিত বা দলীয় প্যানেল শব্দের ব্যবহার করতে পারবেন না। শেখ হাসিনা মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সঙ্গে সমঝোতা বা আতাত করে নির্বাচনী প্রচারণায় প্যানেল করে অংশ নেওয়া যাবে না উল্লেখ রয়েছে।

মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল বলেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্দেশনা উপেক্ষা করে উপজেলা আওয়ামী লীগ চেয়ারম্যান প্রার্থীর সঙ্গে দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীকে যুক্ত করে দলীয় প্যানেল ঘোষণা করেছে। এটি সঠিক হয়নি। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ নিজের সার্থ হাসিল করার জন্য দলের ক্ষতি করছেন বলে তিন উল্লেখ করেন।

মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের নির্দেশনা পত্রটি এখনো পায়নি। তবে পত্রটি হাতে পেলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. একাব্বর হোসেনের সঙ্গে পরামর্শ করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা