kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৪ রবিউস সানি     

সাংবাদিকদের সঙ্গে আনারস প্রতীকের প্রার্থী রশিদুজ্জামান

আধুনিক পাইকগাছা উপজেলা গড়ে তুলতে সকলের সহযোগিতা কামনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ মার্চ, ২০১৯ ১৭:০৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আধুনিক পাইকগাছা উপজেলা গড়ে তুলতে সকলের সহযোগিতা কামনা

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের উন্নয়ন ও অগ্রগতি বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হলেও খুলনার জেলার পাইকগাছা উপজেলার তা থেকে বঞ্চিত। তাই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলার স্বার্থে এবং উন্নয়ন ও অগ্রগতির ছোঁয়া জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে কাজ করতে চান আনারস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বি চেয়ারম্যান প্রার্থী ও পাইকগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সচিব মো. রশিদুজ্জামান। তিনি এই কাজে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

আজ রবিবার খুলনা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিয়মকালে তিনি পাইকগাছার উন্নয়নের স্বার্থে আনারস মার্কাকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান। তিনি নির্বাচনী পরিস্থিতি তুলে ধরে বলেন, নৌকার জন্য জীবন বাজি রেখে দীর্ঘদিন কাজ করেছি এবং আগামীতেও করবো। কিন্তু এবারের উপজেলা নির্বাচনের প্রেক্ষাপট ভিন্ন। যেখানে দলীয়ভাবে আওয়ামী লীগের যোগ্য নেতাকর্মীদের নির্বাচন করার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, আমরা যারা নির্বাচন করছি সবাই আওয়ামী লীগের। সরকারের চাওয়া একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন। তেমনি আমরা প্রার্থীরাও চাই নির্বাচনে কেউ যেন প্রভাব বিস্তার করতে না পারে। সব প্রার্থী যেন সমান সুযোগ পায়। ইতোমধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে সেই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনও সেই নির্দেশনা অনুসরণ করবে বলে আশা করি। ভোটাররা  যাতে উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দিতে পারে এমন নির্বাচনী পরিবেশ নিশ্চিত করার আহ্বান জানান তিনি।

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রশীদুজ্জামান বলেন, আমি এলাকার নির্যাতিত-নিপীড়িত মানুষের পক্ষে দীর্ঘদিন লড়াই সংগ্রাম করে আসছি। এ জন্য জেল, জুলুমসহ অনেক নির্যাতন সহ্য করেছি। পরিবেশ বিধ্বংসী কর্মকাণ্ড থেকে এলাকাকে বাঁচাতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছি। কপোতাক্ষ-শিবসাসহ অন্যান্য নদী খননের মাধ্যমে নদীয় স্বাভাবিক প্রবাহ নিশ্চিত করার পাশাপাশি নদী ভাঙনের হাত থেকে জানমাল রক্ষায় কাজ করতে চাই।

এলাকার রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মন্দিরসহ অবকাঠামো উন্নয়নে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তিনি। বলেন, এখনো অনেক স্থানে অপরিকল্পিত চিংড়ি চাষ চলছে। যা বন্ধ করা প্রয়োজন। লবণাক্ততার প্রকোপ বন্ধ করতে হবে। বদ্ধ খাল-বিলে পানির স্বাভাবিক প্রবাহ নিশ্চিত করতে হবে।। মাছের পাশাপাশি কৃষির উন্নয়নে পরিকল্পিত উদ্যোগ নিতে হবে। সুপেয় পানির ব্যবস্থা করতে হবে। সুন্দরবনসহ পরিবেশ রক্ষায় জনগণকে সম্পৃক্ত করে প্রকল্প নেওয়ার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

দীর্ঘ দিন লড়াই-সংগ্রামে থাকা রশিদুজ্জামান বলেন, ভূমিহীনদের মধ্যে খাস জমি বণ্টনে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে কপিলমুনি হাসপাতালসহ সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে উন্নয়নে পদক্ষেপ নিতে হবে। পাইকগাছা কৃষি কলেজের কাজ দ্রুততার সঙ্গে শেষ করতে হবে। কপিলমুনি, চাঁদখালী, দেলুটিসহ বিভিন্ন স্থানের বাজারগুলো উন্নয়নে উদ্যোগ নিতে হবে। পশ্চাৎপদ লতা ও দেলুটি ইউনিয়নের উন্নয়নে বিশেষ পদক্ষেপ নিতে হবে। রাড়ুলিতে বিজ্ঞানী আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায়ের বাড়িকে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। উপজেলা চেয়ারম্যন নির্বাচিত হলে তিনি এই কাজগুলো গুরুত্বের সঙ্গে করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা