kalerkantho

শনিবার  । ১৯ অক্টোবর ২০১৯। ৩ কাতির্ক ১৪২৬। ১৯ সফর ১৪৪১         

ইটনা উপজেলা নির্বাচন

বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের পুলিশ দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ১৯:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের পুলিশ দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

কিশোরগঞ্জের ইটনায় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী চৌধুরী কামরুল হাসানের সমর্থক ও পুলিশের বিরুদ্ধে সাধারণ ভোটারদেরকে হুমকি ও হয়রানির অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট খলিলুর রহমান।

আজ শনিবার দুপুরে ইটনা উপজেলার রায়টুটী বাজারে তাঁর নির্বাচনী কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

অ্যাডভোকেট খলিলুর রহমান বলেন, তিনি ইটনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে তিনি আনারস প্রতীকে স্বতন্ত্রভাবে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন। দলের বেশিরভাগ নেতাকর্মী তার সাথে রয়েছেন এবং তার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। এতে ঈর্ষান্বিত হয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী চৌধুরী কামরুল হাসানের সমর্থকরা তার পক্ষের লোকজন ও সাধারণ ভোটারদেকে ভয়ভীতি, হুমকি ও নানাভাবে হয়রানি করছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। 

তিনি আরো বলেন, ইটনা উপজেলার বাদলা তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই শহীদুল্লাহ দুদিন আগে রায়টুটী ইউনিয়নের তার নির্বাচনী কর্মী বজলু মিয়াকে ডেকে নিয়ে আনারস প্রতীকের পক্ষে নির্বাচন না করতে শাসিয়ে দিয়েছে। তা না হলে মিথ্যা মামলায় ফাসানোরও হুমকি দিয়ে গেছে। এ অবস্থায় তার সমর্থকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নিশ্চিত করা, প্রত্যেকেই যেন কেন্দ্রে গিয়ে নিজ নিজ ভোট  দিতে পারেন এবং প্রদত্ত ভোটের নিরাপত্তা বিধানের জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে রায়টুটী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফ ক মনোয়ার হোসেন মিলকী, ইটনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপাতি সিদ্দিকুর রহমান, ইটনা উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব খান মিলকী, রায়টুটী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী চৌধুরী কামরুল হাসান তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি নির্বাচনী বিধি বিধান মেনেই প্রচারণা চালাচ্ছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী খলিলুর রহমান নিজের দুর্বলতা ঢাকতেই এমন অভিযোগ করছেন।

অভিযোগের বিষয়ে এএসআই শহীদুল্লাহ বলেন, কথা প্রসঙ্গে বজলু মিয়ার কাছে জানতে চেয়েছিলেন তিনি আওয়ামী লীগ করে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কেন নির্বাচন করছেন। তিনি তাকে হুমকি বা ভয়ভীতি দেখাননি বলে দাবি করেন।

আগামী ২৪ মার্চ কিশোরগঞ্জের সবগুলো উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইটনায় চেয়ারম্যান পদে এই দুজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা