kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

পাঁচ উপজেলাতেই সক্রিয় আ. লীগের বিদ্রোহীরা

পঞ্চগড় প্রতিনিধি    

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১২:১৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পাঁচ উপজেলাতেই সক্রিয় আ. লীগের বিদ্রোহীরা

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পঞ্চগড়ের পাঁচ উপজেলাতেই চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ। এর পরও ওই উপজেলাগুলোতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীরা সক্রিয় আছেন। তাঁরা রিটার্নিং অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারদের কাছ থেকে মনোনয়নপত্রও কিনেছেন। কোনো কোনো উপজেলায় আওয়ামী লীগের একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী মাঠে আছেন। তবে তাঁরা শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকবেন না বলে আশ্বস্ত করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা।    

রিটার্নিং অফিসারদের দেওয়া তথ্য মতে, সদর, আটোয়ারী, তেঁতুলিয়া, বোদা ও দেবীগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ২৫ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন।   

দেবীগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র কিনেছেন ৯ জন। তাঁদের মধ্যে সাতজনই আওয়ামী লীগের। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান হাসনাৎ জামান চৌধুরী জর্জ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য হারুন অর রশিদ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক চিশতী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পরিমল দে সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মকলেছুর রহমান হেলাল এবং আওয়ামী লীগের দুই সমর্থক অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ও রবিউল আলম (স্বতন্ত্র)। হাসনাৎ জামানকে ঠেকাতে স্বতন্ত্র হিসেবে বেশির ভাগ প্রার্থীই মাঠে আছেন বলে জানা গেছে। এ ছাড়া উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল গণি বসুনিয়া ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোফাখ্খারুল আলম বাবু স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র কিনেছেন। 

বোদায় চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র কিনেছেন চারজন। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আলম টবি, বিদ্রোহী প্রার্থী ও সাকোয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সায়েদ জাহাঙ্গীর আলম সবুজ, জামায়াত সমর্থক ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান শফিউল্লাহ সুফি ও পৌর যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক জাকির হোসেন।

অন্যদিকে সদরে চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিরুল ইসলাম, চাকলাহাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস প্রামাণিক, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু দাউদ প্রধান, যুব জাগপার কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তৌফিক হোসেন ও রফিকুল ইসলাম।

আটোয়ারীতে মনোনয়নপত্র কিনেছেন দুজন। দুজনই আওয়ামী লীগের। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনিছুর রহমান।

এ ছাড়া তেঁতুলিয়ায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের জন্য পাঁচজন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহামুদুর রহমান ডাবলু, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ফরিদা আখতার হীরা, আওয়ামী লীগ সমর্থক ও ভজনপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক, উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হায়দার আলী এবং বিএনপি সমর্থক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তারুল হক মুকু। 

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত সম্রাট বলেন, ‘বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিলে দল তাঁর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা