kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

ষষ্ঠ শ্রেণি

বাংলা প্রথম পত্র

লুৎফা বেগম, সিনিয়র শিক্ষক, বিএএফ শাহীন কলেজ, কুর্মিটোলা, ঢাকা

২০ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বাংলা প্রথম পত্র

সৃজনশীল প্রশ্ন

সততার পুরুস্কার

মুহম্মদ শহীদুল্লাহ

প্রশ্ন : আমিন শেখ নিজের ব্যবসার কাজে গ্রামের এক দোকানির কাছ থেকে টাকা ধার করেছিলেন। যথাসময়ে সেই টাকা ফিরিয়ে দিয়েই তিনি ক্ষান্ত হননি; বরং প্রয়োজনে অর্থ জোগান দেওয়ার জন্য তাঁর কাছে সব সময় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। অন্যদিকে জমির শিকদারকে আমিন শেখ টাকা ধার দিয়ে যথাসময়ে ফেরত চাইতে গেলে জমির শিকদার টাকা ধার নেওয়ার কথা সম্পূর্ণ অস্বীকার করে তাকে খালি হাতে বিদায় দেয়।

ক) ‘সততার পুরস্কার’ গল্পে ‘ধবল’ শব্দটি কী অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?

উত্তর : ‘সততার পুরস্কার’ গল্পে ‘ধবল’ শব্দটি ‘কুষ্ঠরোগ’ অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে।

খ) ফেরেশতা ধবল রোগীর গায়ে হাত বুলিয়ে দিলেন কেন? ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : ধবল রোগীর শারীরিক ত্রুটি দূর করার জন্য ফেরেশতা তার গায়ে হাত বুলিয়ে দিলেন।

মুহম্মদ শহীদুল্লাহ রচিত ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের ইহুদি বংশের একজনের সর্বাঙ্গে ধবল ছিল। সে জন্য কেউ তাকে দেখতে পারত না, ঘৃণা করত। ফেরেশতা মানুষের রূপ ধরে তার কাছে এসে সে সবচেয়ে কী ভালোবাসে জানতে চাইলে সে তার শারীরিক ত্রুটি দূর করার কথা বলে। তাই ফেরেশতা তার সুস্থতার জন্য গায়ে হাত বুলিয়ে দিলেন।

গ) উদ্দীপকের জমির শিকদারের মানসিকতা কোন দিক থেকে ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের কাদের সঙ্গে সম্পর্কিত? ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : উদ্দীপকের জমির শিকদারের মানসিকতা ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের ধবল রোগী ও টাকওয়ালার     অকৃতজ্ঞতার সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ।

‘সততার পুরস্কার’ গল্পের ধবল রোগী ও টাকওয়ালা তাদের শারীরিক ত্রুটি দূর করে দেওয়ার জন্য ফেরেশতার অনুগ্রহ প্রার্থনা করলে ফেরেশতা তাদের ত্রুটি দূর করে ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য ধবল রোগীকে একটি গাভিন উট ও টাকওয়ালাকে একটি গাভিন গাই প্রদান করেন। ফেরেশতার কৃপায় ধবল রোগী এক উট থেকে বহু উটের আর টাকওয়ালা বহু গাভির মালিক হয়। কিছুদিন পর ফেরেশতা পরীক্ষা করার জন্য গরিব বিদেশির ছদ্মবেশে তাদের কাছে হাজির হন। তিনি দুজনের কাছে গিয়েই তাদের পূর্বাবস্থা স্মরণ করিয়ে দিয়ে কিছু সাহায্য প্রার্থনা করেন। দুজনেই তাদের পূর্বের দুরবস্থার কথা অস্বীকার করে ছদ্মবেশী ফেরেশতাকে খালি হাতে বিদায় দেয়।

উদ্দীপকের জমির শিকদারকে আমিন শেখ প্রয়োজনের সময় টাকা ধার দিয়ে নির্দিষ্ট সময় অতিবাহিত হওয়ার পর তা ফেরত চাইতে গেলে জমির শিকদার টাকা ধার নেওয়ার কথা সম্পূর্ণ অস্বীকার করে তাকে খালি হাতে বিদায় দেয়। জমির শিকদারের চরিত্রের এই অকৃতজ্ঞতার দিকটি ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের ধবল রোগী ও টাকওয়ালার আচরণের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত।

ঘ) ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের মূল শিক্ষা আমিন শেখের মধ্যে নিহিত—মন্তব্যটি বিশ্লেষণ করো।

উত্তর : ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের মূল শিক্ষা সততা ও মূল্যবোধকে নিজের চরিত্রে ধারণ দিকটি উদ্দীপকের আমিন শেখের মধ্যে নিহিত।

‘সততার পুরস্কার’ গল্পের ইহুদি বংশের তিন ব্যক্তিকে পরীক্ষা করার জন্য আল্লাহ একজন ফেরেশতা পাঠান। এদের মধ্যে প্রথম জন ছিল কুষ্ঠ রোগী, দ্বিতীয় জন টাকওয়ালা, তৃতীয় জন অন্ধ। ফেরেশতার অনুগ্রহে তিনজনেরই শারীরিক ত্রুটি যে শুধু দূর হয়, তা নয়। তিনি তিনজনকেই যথাক্রমে গাভিন উট, গাভি ও ছাগল প্রদান করে তাদের ভাগ্য পরিবর্তনের ব্যবস্থা করেন। কিছুদিন পরে ফেরেশতা তাদের পরীক্ষা করার জন্য পূর্বাবস্থা স্মরণ করিয়ে দিয়ে সাহায্য প্রার্থনা করলে প্রথম দুজন সবই অস্বীকার করে, কিন্তু অন্ধ লোকটি স্বীকার করে আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে এবং ছদ্মবেশী ফেরেশতাকে তার ইচ্ছামতো সম্পদ নিয়ে যেতে বলে।

উদ্দীপকের আমিন শেখ তাঁর ব্যবসার কাজে যার কাছ থেকে অর্থ সাহায্য পেয়েছিলেন সে জন্য তিনি সব সময় তার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

উপর্যুক্ত বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তাই বলা যায়, ‘সততার পুরস্কার’ গল্পের মূল শিক্ষা সততা ও মূল্যবোধের প্রকাশ আমিন শেখের মধ্যে নিহিত।

মন্তব্য