kalerkantho

সহজ পাঠ

বাংলা

ব্যাকরণের বিশেষ্য বা সর্বনামের সংখ্যাবাচক ধারণা প্রকাশের উপায়কে বচন বলে। বাংলা ভাষায় বচন দুই প্রকার—একবচন ও বহুবচন।

১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



বাংলা

বচন

একবচন

যে শব্দ দ্বারা কোনো প্রাণী, বস্তু বা ব্যক্তির একটিমাত্র সংখ্যার ধারণা হয়, তাকে একবচন বলে।

যেমন : ছেলেটি আজ স্কুলে যায়নি।

এখানে ছেলেটি একবচন শব্দ।

বহুবচন

যে শব্দ দ্বারা কোনো প্রাণী, বস্তু বা ব্যক্তির একের অধিক অর্থাৎ বহু সংখ্যার ধারণা হয়, তাকে বহুবচন বলে। যেমন : মেয়েরা এখনো আসেনি।

এখানে মেয়েরা বহুবচন শব্দ।

 

শুধু বিশেষ্য ও সর্বনাম পদের বচনভেদ হয়। সাধারণত বিশেষণ পদের বচনভেদ হয় না; কিন্তু কোনো বিশেষণবাচক শব্দ যদি কোনো বাক্যে বিশেষ্য পদ হিসেবে ব্যবহৃত হয়, তখন তার বচনভেদ হয়।  যেমন: লাল লাল ফুল, বড় বড় মাছ।

বাংলায় বহুবচন বোঝানোর জন্য কতগুলো শব্দ বা শব্দাংশ (বিভক্তি) ব্যবহৃত হয়। এগুলোর বেশির ভাগই এসেছে সংস্কৃত ভাষা অর্থাৎ তৎসম শব্দ বা শব্দাংশ থেকে। যেমন—রা, এরা, গুলা, গুলি, গুলো, দিগ, দের (শব্দাংশ বা বিভক্তি); সব, সকল, সমুদয়, কুল, বৃন্দ, বর্গ, নিচয়, রাজি, রাশি, পাল, দাম, নিকর, মালা, আবলি (শব্দ)।

মন্তব্য