kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

ঈদ যাত্রায় বিড়ম্বনার শঙ্কা

সড়ক-মহাসড়ক মেরামতে ব্যবস্থা নিন

২১ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঈদ যাত্রায় বিড়ম্বনার শঙ্কা প্রতিবছরের। পথের বিড়ম্বনা বলতে শুধুই বেহাল সড়ক-মহাসড়ক নয়, অজ্ঞান পার্টি, টানা পার্টি থেকে শুরু হয়ে ছিনতাইকারীদের দৌরাত্ম্যও বেড়ে যায় এ সময়। আর আছে জাল টাকার বিড়ম্বনা। ঈদের টিকিট সংগ্রহ করতে অনেকটাই যুদ্ধ চলে। টিকিট সংগ্রহের পর যাত্রাপথের শঙ্কা। এবার ঈদ যাত্রা শুরু হচ্ছে ৩০ মে থেকে। ৫ জুন ঈদুল ফিতর হবে ধরে নিয়ে ১৭ মে থেকে সড়কপথে আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। এবারের ঈদ যাত্রায় ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-টাঙ্গাইল, ঢাকা-আরিচা, ঢাকা-আশুলিয়া-নবীনগর মহাসড়কে যাত্রীদের ভোগান্তিতে পড়তে হবে—এমন আশঙ্কার কথা উল্লেখ করে কালের কণ্ঠে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সওজ অধিদপ্তরের মহাসড়ক উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা বিভাগ—এইচডিএমের সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, অধিদপ্তরের ২৬.৩২ শতাংশ বা পাঁচ হাজার কিলোমিটার সড়ক ভাঙাচোরা।

এমনিতেই ঈদের সময় ঘরমুখো মানুষের ভিড় বাড়ে। নিকটজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে নাড়ির টানে বাড়ি ফেরে মানুষ। স্বাভাবিক কারণেই এ সময় আন্ত জেলা বাস কম্পানিগুলো তাদের ট্রিপের সংখ্যা বাড়িয়ে দেয়। ঘরমুখো মানুষের ভিড় সামাল দিতে চালু হয় বিশেষ সার্ভিস। এ সময় বিআরটিসিও বিশেষ সার্ভিস চালু করে। কিন্তু ঘরমুখো মানুষের চাপ সামাল দেওয়া অনেক সময় সম্ভব হয় না। ঈদের সময় দেখা যায়, আঞ্চলিক রুটের অনেক বাস চলে আসে মহাসড়কে। এসব বাস মহাসড়কে যানজটের অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়ায়। একদিকে এসব বাসের চালক মহাসড়কে যানবাহন চালানোর ব্যাপারে অভিজ্ঞ নয়, তার ওপর রয়েছে যত্রতত্র বাস থামিয়ে যাত্রী ওঠানামা। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায়, মাঝরাস্তায় গাড়ি থামিয়ে যাত্রী তোলা হচ্ছে বা নামানো হচ্ছে। এতে পেছনে যানবাহনের লম্বা লাইন পড়ে যায়, সৃষ্টি হয় যানজট। 

ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে সড়ক-মহাসড়ক সংস্কারে হাত দিতে হবে। ভাঙাচোরা রাস্তা যেন কোনো দুর্ঘটনার কারণ না হয় সেদিকে দৃষ্টি দিতে হবে। হাতে যে কয়েক দিন সময় আছে, এর মধ্যে যেটুকু সম্ভব রাস্তা মেরামত করা গেলে ঈদ যাত্রার দুর্ভাবনা কমবে। সেই সঙ্গে হাইওয়ে পুলিশকে সক্রিয় করতে হবে। যত্রতত্র গাড়ি থামানো ও যাত্রী ওঠানামা বন্ধ করা গেলে অনেকটা নির্বিঘ্ন হবে ঈদ যাত্রা। দৃষ্টি দিতে হবে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির দিকেও। সংশ্লিষ্ট সব মহলের সক্রিয় সহযোগিতায় এবারের ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন হোক।

 


খবরটি ইউনিকোড থেকে বাংলা বিজয় ফন্টে কনভার্ট করা যাবে কালের কণ্ঠ Bangla Converter দিয়ে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা