kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ মে ২০১৯। ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৫ রমজান ১৪৪০

মন্থর গতিতে কমছে দারিদ্র্য

বৈষম্য কমানোর উপায় খুঁজতে হবে

১৫ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গতি মন্থর হলেও দেশে দরিদ্র ও অতিদরিদ্র মানুষের সংখ্যা কমেছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর খানা আয়-ব্যয় জরিপের চূড়ান্ত ফল বলছে, দেশে এখনো দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করছে তিন কোটি ৪৯ লাখ মানুষ। শতাংশের হিসাবে ২১.৮ শতাংশ। অন্যদিকে হতদরিদ্রের হার এখন ১১.৩ শতাংশ বা এক কোটি ৮০ লাখ। ২০১০ সালে দেশে দারিদ্র্যের হার ছিল ৩১ শতাংশ। ২০১৬ সালে এই হার ছিল ২৪.৩ শতাংশ। খানা জরিপের ফল অনুযায়ী, দেশে খানাপ্রতি ব্যয় দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৭১৫ টাকা। প্রতিটি খানার গড় আয় ১৫ হাজার ৯৮৮ টাকা। মাথাপিছু আয়-ব্যয় বাড়লেও খাদ্যগ্রহণের পরিমাণ কমেছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) পরিচালিত সর্বশেষ খানা আয় ও ব্যয় জরিপ বলছে, দেশে দারিদ্র্যের হার কমলেও বেড়েছে সম্পদের বৈষম্য। খানা আয় ও ব্যয় জরিপ ২০১৬ থেকে সম্পদ ও দেশের আঞ্চলিক বৈষম্যের চিত্র পাওয়া যায়, তা নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ আছে। বিবিএসের জরিপের তথ্য অনুযায়ী, দেশের সব মানুষের যত আয়, এর মাত্র ১.০১ শতাংশ আয় করে সবচেয়ে গরিব ১০ শতাংশ মানুষ। ছয় বছর আগেও মোট আয়ের ২ শতাংশ এই শ্রেণির মানুষের দখলে ছিল। অন্যদিকে সবচেয়ে ধনী ১০ শতাংশ মানুষের আয় মোট আয়ের ৩৮.১৬ শতাংশ। ছয় বছর আগে এর পরিমাণ ছিল ৩৫.৮৪ শতাংশ। বিবিএস জরিপে আরো বলা হয়েছে, দেশের মোট আয়ের দুই-তৃতীয়াংশের মালিক ওপরের দিকে থাকা ৩০ শতাংশ মানুষ।

গতি মন্থর হলেও দারিদ্র্যের হার কমেছে, এটা আমাদের জন্য একটি সুখের খবর। একটি সাম্যের দেশ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিল এ দেশের মানুষ। মানুষের সেই মুক্তির লড়াই আজও শেষ হয়নি। নানা ঘাত-প্রতিঘাতের ভেতর দিয়ে এগিয়ে চলেছে দেশ। এমডিজি অর্জনের পর এখন চলছে এসডিজি অর্জনের কাজ। এ কথা ঠিক যে সমাজব্যবস্থায় এখন পর্যন্ত নিয়ামক শ্রেণির অভ্যুদয় ঘটেনি। বরং মধ্যবিত্ত বরাবর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আর্থ-সামাজিক—রাজনৈতিক পরিবর্তন দেশের মানুষের ভাগ্য কতটা পরিবর্তন করতে পেরেছে তার ওপরই নির্ভর করে একটি দেশের ভবিষ্যৎ। সেই ভবিষ্যৎ রচনার ভার যাদের হাতে, তারা সেই কাজটি করে দেখাতে পারলেই মঙ্গল। সমাজে একটি বিশেষ শ্রেণির উদ্ভব ঘটলে বিকাশ বাধাগ্রস্ত হয়। দারিদ্র্যের দুষ্টচক্র থেকে বেরিয়ে আসা যে খুব সহজ নয়, তা দেখিয়েছে এবারের জরিপ। যদিও বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে ব্যাখ্যাও দেওয়া হয়েছে। যখন দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ঊর্ধ্বমুখী, তখন দারিদ্র্যের হার কেন কমছে না, তা নিয়ে ভাবতে হবে। মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের সূচকগুলো নিয়ে কাজ করার কোনো বিকল্প নেই।

 

মন্তব্য