kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

বৈশাখী সাজ

চিরায়ত বৈশাখ

রমনার বটমূলে ছায়ানটের শিল্পীরা শুরু করেছিল বর্ষবরণে বাঙালি সাজের চল। ফিউশন করতে গিয়ে এখন লাল-সাদার সঙ্গে জুড়েছে আরো অনেক উজ্জ্বল রং। তবে এবারের বৈশাখে যাবতীয় ট্রেন্ড এক পাশে তুলে সাজো সরল সাজে। পরামর্শ দিয়েছেন রেড বিউটি স্যালনের রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন

৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চিরায়ত বৈশাখ

বৈশাখ মানেই প্রচণ্ড রোদ আর গরম। দিনের সাজে সুতি শাড়িই সবচেয়ে আরাম দেবে। লাল পাড়ের সাদা বা অফহোয়াইট শাড়ি বেছে নাও। ব্লাউজের নকশায় থাকুক পুরনো দিনের মোটিফ। ছায়ানটেরও অনেক আগে শান্তিনিকেতনে প্রথম ঋতুভিত্তিক উত্সবে বৈশাখ বরণ অনুষ্ঠান শুরু হয়। সেই সময়কার লুক তুলতে পারো তোমার সাজে। শান্তিনিকেতনি কাটে থ্রিকোয়ার্টার হাতার ব্লাউজ পরতে পারো লাল-সাদা শাড়ির সঙ্গে। লাল ব্লাউজের গলা আর হাতায় থাকবে কুঁচি নকশা। বিকেল বা রাতে শাড়ি পরতে চাইলে একটু জমকালো ফ্যাব্রিকসের শাড়ি ভালো মানাবে। সে ক্ষেত্রে শাড়ির ফ্যাব্রিকস সিল্ক, গরদ, কাতান বা জামদানি হতে পারে। তবে রং অবশ্যই লাল পাড়ে সাদা বা অফহোয়াইট জমিন।

ছেলেরা পরতে পারো সুতির ফতুয়া বা পাতলা পাঞ্জাবি। সঙ্গে জিনসটা বাদ দিয়ে চড়াতে পারো পাজামা। বন্ধুরা চাইলে মজা করে দল বেঁধে ঝলমলে লুঙ্গি, খদ্দরের ফতুয়া আর গলায় গামছা পেঁচিয়ে ঘুরতে পারো এই দিন। তোমাদের পোশাকটাই দেখবে অন্যদের মনে এনে দেবে বৈশাখের দোলা।

মেয়েদের ক্ষেত্রে ঐতিহ্যবাহী সাজে ভারি মেকআপ বেমানান। তা ছাড়া মেকআপ যত ভালোই হোক, সরাসরি সূর্যালোকে তা গলতে শুরু করবেই। তাই বৈশাখের কিছুক্ষণ না পেরোতেই ম্লান হয়ে আসবে সাজখানা। তাই শাড়ির মতো সাজও হোক ছিমছাম সতেজ।

এবার ছেলেদেরও বলছি। দিনের শুরুতে মুখ ধুয়ে ভালো করে এক টুকরো বরফ ঘষে নাও। সেটা মুছে ময়েশ্চারাইজার লাগাও। কয়েক মিনিট অপেক্ষা করে ভালো মানের সানস্ক্রিন লাগিয়ে নাও। রোদের ক্ষতি থেকে ত্বক বাঁচাতে এর বিকল্প নেই। এরপর সামান্য পাউডার পাফই যথেষ্ট। মেয়েরা চোখ ভরে কাজল দাও, সঙ্গে মেরুন লিপস্টিক। সব শেষে কপালে মানানসই টিপ।

মনোযোগ দেওয়া যেতে পারে ঐতিহ্যবাহী গয়নাতেও। গলার মালা, কানে ঝুমকো বা দুল, হাতভর্তি চুড়ি-বালা তো থাকছেই। যোগ করতে পারো নূপুর, খোঁপায় নকশা করা কাঁটা। চুলের সাজে খোঁপা কিংবা বেণি করলেই দেখতে বৈশাখ এসে ভর করছে তোমার ওপর। ছেলেরাও আদি-অকৃত্রিম বাঙালি চেহারা ফিরে পেতে চাইলে বাইরের কোনো তারকাকে অনুসরণ না করে ছিমছাম সাধারণ কাট দিলেই পারো। হাতে পরো বৈশাখী ব্রেসলেট। অনলাইন শপগুলো এখন এসবেই সয়লাব।

বৈশাখে মাথায় ফুলের ব্যান্ডেনা তো অনেক হলো। এই ব্যান্ডেনা কিন্তু গ্রিক সংস্কৃতির অংশ। এবার তাই খোঁপার এক পাশে গুঁজে দিতে পারো শিমুল, কৃষ্ণচূড়া বা পলাশ। বেণি হলে জড়িয়ে নাও কাঠবেলি কিংবা আচ্ছন্ন হয়ে থাকতে পারো কাঠগোলাপের সাদার মায়ায়।

শ্রুতলিখন : মারজান ইমু

মন্তব্য