kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৪ রবিউস সানি     

নতুন ঠিকানায় কলাবাগান থানা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:৪৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নতুন ঠিকানায় কলাবাগান থানা

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কলাবাগান থানা স্থান পরিবর্তন করে অস্থায়ীভাবে নতুন ঠিকানায় কার্যক্রম শুরু করেছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ফিতা কেটে ও বেলুন উড়িয়ে অস্থায়ী ভবনে কলাবাগান থানার কার্যক্রম উদ্বোধন করেন ডিএমপি কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া বিপিএম (বার), পিপিএম।

ভূতের গলি কমিউনিটি সেন্টার, ধানমন্ডি এলাকা হতে কলাবাগান থানা স্থানান্তরিত হয়ে বর্তমানে পান্থপথস্থ হোটেল সুন্দরবনের পেছনে কাঠালবাগান এলাকায় স্থাপিত হয়েছে। আব্দুল মোমেন গ্রুপ লিমিটেড এর ৭ তলা বিশিষ্ট ভাড়া করা ভবনে কলাবাগান থানা অস্থায়ীভাবে তার কার্যক্রম চালাবে।

আইন শৃঙ্খলা রক্ষার সুবিধার্থে ২০০৯ সালে ধানমন্ডি থানা ভেঙ্গে কলাবাগান থানা করা হয়। শুরু থেকে থানার নিজস্ব কোন জায়গা না থাকায় জরাজীর্ণ সিটি কর্পোরেশনের কমিউনিটি সেন্টার থেকে চালানো হয় থানার কার্যক্রম। দীর্ঘদিন ব্যবহারের পরে কমিউনিটি সেন্টারটি ঝুঁকিপূর্ণ ও পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। নিজস্ব থানা ভবন না হওয়া পর্যন্ত অস্থায়ীভাবে উল্লেখিত জায়গায় কলাবাগান থানা জনসাধারণকে সকল প্রকার আইনি সেবা প্রদান করবে।

অস্থায়ীভাবে থানা কার্যক্রম উদ্বোধন অনুষ্ঠানে কমিশনার বলেন, দীর্ঘদিন ব্যবহারের ফলে কলাবাগান থানা ভবনটি ছিল জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ। অপরাধ দমন ও ভালো নাগরিক সেবা দেয়ার সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য নিজস্ব থানা ভবন জরুরী। পুলিশের সেবা সবাই চাই কিন্তু পুলিশের অবকাঠামো ও জায়গা কেউ দিতে চাই না।

তিনি বলেন, থানার সেবার মান অনেক বৃ্দ্ধি করা হয়েছে। থানায় কেউ সোব নিতে আসলে কোন রকম হয়রানি ছাড়া সর্বোচ্চ আইনি সেবাটি দিতে সকলকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। থানায় মানুষ এসে যেন বুঝতে পারে সে নিরাপদ আশ্রয়স্থলে এসেছে। বিপদগ্রস্থ নাগরিককে থানা হতে সর্বোচ্চ আইনি সেবা দিতে হবে। অপরাধ দমনে পুলিশের সক্ষমতার সাথে বাড়ানো হয়েছে মোবিলিটি।

কমিশনার আরো বলেন, মাদকের ভায়াবহতা থেকে আমরা কেউ নিরাপদ নয়। আমাদের দেশ, সমাজ ও সন্তানদের বাঁচাতে হলে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে। মাদক কারবারি যেই হোক ঢাকা মহানগরীতে তার ঠাঁই হবে না।

এছাড়াও তিনি কলাবাগান থানার জন্য অস্থায়ীভাবে একটি ভবন দেয়ায় আব্দুল মোমেন গ্রুপকে ধন্যবাদ জানান।

এর আগে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ( প্রশাসন) শাহাব উদ্দিন কোরেশী, উপ-পুলিশ কমিশনার (রমনা বিভাগ) মোঃ মারুফ হোসেন সরদার বিপিএম, পিপিএম ও কলাবাগান থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ ইয়াসির আরাফাত খান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিবৃন্দ ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা