kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

জামিনে থেকে প্রতিপক্ষকে হত্যা

চার্জশিটভুক্ত আসামি টিকটিকি কামাল গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ মার্চ, ২০১৯ ০৩:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চার্জশিটভুক্ত আসামি টিকটিকি কামাল গ্রেপ্তার

পুরান ঢাকার কদমতলী এলাকার কবির হত্যা মামলায় চার্জশিটভুক্ত আসামি টিকটিকি কামালকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। অস্ত্র ও চাঁদাবাজির মামলায় ১০ বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত কামাল জামিনে থেকে ওই হত্যাকাণ্ড ঘটায় বলে অভিযোগ আছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে জুরাইন মেডিক্যাল রোড এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পিবিআইয়ের বিশেষ পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ বলেন, টিকটিকি কামাল দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিল। থানা পুলিশ ও ডিবির পর তদন্তের দায়িত্ব পেয়ে এই ভয়ংকর সন্ত্রাসীকে অবশেষে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

পিবিআই সূত্রে জানা গেছে, নিহত কবির হোসেন ও কামাল একসঙ্গে অস্ত্রের মহড়া দিয়ে সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে চাঁদাবাজি করত। ২০০৪ সালে বিদেশি পিস্তল ও রিভলবারসহ কামালকে সায়েদাবাদ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে র্যাব। পরে বিচারে ১০ বছরের সাজা হয় তার। ওই মামলায় চার বছর পাঁচ মাস জেল খেটে জামিন পায় সে। এরপর জামিনে মুক্ত হওয়ার এক মাসের মধ্যেই ফের চাঁদাবাজি শুরু করে কামাল। এ সময় তাকে বাধা দেয় পুরনো ‘বন্ধু’ কবির। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সহযোগীদের নিয়ে কবিরকে হত্যা করে কামাল।

হত্যাকাণ্ডের পর ঘটনাস্থল থেকে কালো রঙের মোটরসাইকেল জব্দ করে কদমতলী থানা পুলিশ। এ সময় কবির হোসেনের লাশও উদ্ধার হয়। ওই ঘটনায় নিহতের বড় ভাই নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে ২০০৯ সালের ১৮ জুন হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তদন্ত শেষে মূল আসামি কামাল ওরফে টিকটিকি কামালকে পলাতক দেখিয়ে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে কদমতলী থানা পুলিশ। এরপর আদালত মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশকে (ডিবি) নির্দেশ প্রদান করেন। ডিবিও তদন্ত শেষে অনুরূপ অভিযোগপত্র দাখিল করলে আদালত অধিকতর তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেন।

পিবিআইয়ের পুলিশ পরিদর্শক কামাল হোসেন বলেন, আদালতের দায়িত্ব পেয়ে এই মামলার দীর্ঘ তদন্তের পর কবিরকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা