kalerkantho

কামরাঙ্গীরচরে আড়াই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২১:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কামরাঙ্গীরচরে আড়াই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

বুড়িগঙ্গা নদীর দুই পাড় দখলমুক্ত করার তৃতীয় ধাপের প্রথম দিনের মতো উচ্ছেদ কাজ শুরু করছে বিআইডব্লিউটিএ। আজ মঙ্গলবার সকল ১০ টায় কামরাঙ্গীরচর এলাকার ব্যাটারিঘাট থেকে শুরু করে বালুরঘাট পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে বিআইডাবিব্লউটিএ।

এ সময় জনগণের হট্টগোল করতে চাইলে বিআইডাব্লিউটিএ কর্মকর্তারা পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা নেন। উচ্ছেদ অভিযানটি একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত পরিচালনা করা হয়। এ সময় বিআইডাব্লিটিএ'র বুলডেজার একের পর অবৈধস্থাপনা ভেঙে গুড়িয়ে দেন। তৃতীয় ধাপের প্রথম দিনে বিআইডাব্লিটিএ প্রায় আড়াই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচেছদ করেন।

উচ্ছেদ হওয়া অভিযানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আইয়ের গোডাউন, স্টিলের কারখানা, ৩য় তলা তারাবাতি (আতশবাজি) কারখানাসহ প্রায় ছোটবড় ২০-২৫টি কারখানা এবং কাঁচাপাঁকা টিনসেডঘরসহ প্রাড়াই শতাধিক বস্তিবাড়ি।

কামরাঙিরচর এলাকার ব্যাটারিঘাট থেকে শুরু করে বালুরঘাট পর্যন্ত উচ্ছেদ হওয়া ভুক্তভোগিরা দাবি করেন, আমরা যদি দোষী হই সরকার আমাদের শাস্তি প্রদান করুক। আর আমাদের যদি কাগজপত্র ঠিক থাকে সরকারের যদি আমাদের এ জায়গা দরকার হয় তাহলে আমাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করুক।

বিআইডাব্লিউটিএর এ উচ্ছেদ অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে স্থানীয় বাসিন্দা নূর হোসেন, হাজি আলমাস, আলী আকবরসহ অনেকেই বলেন, বিআইডাব্লিউটিএ যখন নদীর জায়গার অবৈধ দখল উচ্ছেদ করছেন তখন এ জায়গাগুলো ফেলে না রেখে দ্রুত এখানে কোনো কিছু করা দরকার। তা না হলে ফের কয়েকদিন পর ক্ষমতার দাপটে দখল হয়ে যাবে।

বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক (ঢাকা বন্দর) এ কে এম আরিফ উদ্দিন জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দেশের সকল খাল, নদ-নদীর জায়গা, বেদখল হওয়া সম্পত্তি উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে।

বুড়িগঙ্গা নদীর ওপারে গড়ে ওঠা শিকদার মেডিক্যাল কলেজও কি ভাঙা হবে সাংবাদিকদের এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠানটির যদি বৈধ কাগজপত্র না থাকে তাহলে তাদেরকে আমরা পরামর্শ দেব সরকারের কাছ থেকে অধিগ্রহণ করে জায়গা কিনতে। না হলে আমরা আমাদের কাজ করে যাব।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিআইডাব্লিটিএর চেয়ারম্যান কমডোর এম মোযাম্মেল হক, বিআইডাব্লিটি'র এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রে মো. মোস্তাফিজুর রহমান, কামরাঙিরচর থানা ও নৌ পুলিশ এবং প্রায় শতাধিক লেবার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা