kalerkantho

বুধবার। ১৯ জুন ২০১৯। ৫ আষাঢ় ১৪২৬। ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

ক্রাচে ভর দিয়ে আদালতে রাসেল

গ্রিন লাইনের আচরণ ভালো লাগেনি : হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গ্রিন লাইন পরিবহনের বাসের চাপায় পা হারানো রাসেল সরকারকে আর কোনো টাকা দেয়নি গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষ। এমনকি আইনজীবীর সঙ্গেও কোনো যোগাযোগ করেনি। এ পরিস্থিতিতে হাইকোর্ট অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। আদালত বলেছেন, ‘আমাদের কাছে গ্রিন লাইনের আচরণ ভালো লাগেনি। আমরা কঠোর হতে চাই না। কিন্তু আমাদের বাধ্য করবেন না কঠোর হতে। আমাদের নমনীয়তাকে দুর্বলতা মনে করার কারণ নেই। এরপর আদালত আগামী ২৫ জুন পরবর্তী আদেশের জন্য দিন নির্ধারণ করেন।

বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল বুধবার এ আদেশ দেন। গতকাল রাসেলের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন খোন্দকার শামসুল হক রেজা। গ্রিন লাইনের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. অজি উল্লাহ। এ সময় রাসেল সরকার উপস্থিত ছিলেন।

গতকাল শুনানির শুরুতেই আদালত গ্রিন লাইনের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. অজি উল্লাহর কাছে আদালত জানতে চান, আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন হয়েছে কি না? জবাবে অ্যাডভোকেট মো. অজি উল্লাহ বলেন, গ্রিন লাইনের কেউ আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি এই মামলা থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করব।

এ সময় খোন্দকার শামসুল হক রেজার কাছে আদালত জানতে চান, এ পর্যন্ত রাসেলের চিকিৎসার জন্য গ্রিন লাইন কী করেছে? জবাবে এ আইনজীবী বলেন, আদালতের আদেশের পর এককালীন পাঁচ লাখ টাকা ও চিকিৎসার জন্য তিন লাখ টাকা দিয়েছে। এরপর আর কোনো যোগাযোগ করেনি।

এ সময় আদালত বলেন, রাসেল কি এখন হাঁটাচলা করতে পারে?

জবাবে রাসেলের আইনজীবী বলেন, কৃত্রিম পা লাগানো হয়েছে, এখন ক্রাচে ভর করে হাঁটতে পারে। এ পর্যায়ে আইনজীবীর ইশারায় রসেল ক্রাচে ভর করে ডায়েসের কাছাকাছি যান। তখন রাসেলের আইনজীবী আদালতকে বলেন, ‘আমার যা মনে হয় তারা (গ্রিন লাইন) ক্ষতিপূরণ না দেওয়ার প্রক্রিয়া খুঁজছে।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা