kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

সদরঘাটে ২৭ দোকান উচ্ছেদ

আধুনিকায়ন হচ্ছে টার্মিনাল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সদরঘাটে ২৭ দোকান উচ্ছেদ

সদরঘাটের পুরনো টার্মিনালের ভেতরে ২৭টি দোকান নিয়ে গড়ে ওঠা অবৈধ মার্কেটটি গুঁড়িয়ে দিয়েছে বিআইডাব্লিউটিএ। ছবি : কালের কণ্ঠ

সদরঘাটে ‘বিষফোড়া’ হয়ে থাকা ২৭টি দোকান অপসারণ করা হয়েছে। আইনি লড়াইয়ে জয়লাভের পর বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডাব্লিউটিএ) অভিযান চালিয়ে গতকাল মঙ্গলবার অবৈধ মার্কেটটি গুঁড়িয়ে দিয়েছে। এদিকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের পর টার্মিনাল আধুনিকায়নের কাজ শুরু হবে বলে জানা গেছে।

বিআইডাব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন বলেন, ‘মার্কেটসহ আবর্জনা অপসারণ কার্যক্রমের পর টার্মিনালটির আধুনিকায়ন করা হবে, যা দীর্ঘদিন ঝুলে ছিল। টার্মিনালটির নদীর দিকে দেয়াল সংস্কার করে স্বচ্ছ কাচ দেওয়া হবে, যার মাধ্যমে যাত্রীরা সহজেই নদী ও নৌযান দেখতে পাবে অপেক্ষমাণ অবস্থায়। হকারদের মাধ্যমে নদীতে যে বর্জ্য ফেলা হতো তা নিয়ন্ত্রণও এখন সহজ হবে। ভাসমান হকার ও কুলির দৌরাত্ম্য কমানো সম্ভব হবে। আমরা যাত্রীবান্ধব পরিচ্ছন্ন নদীবন্দর গড়ে তুলতে সচেষ্ট।’

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, ঈদে লঞ্চ যাত্রীদের ভোগান্তি লাঘবে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। উচ্চ আদালতের রায়ে মার্কেট অপসারণ করায় তা আরো সহজ হলো। টার্মিনালে এখন ময়লা-আবর্জনা ফেলার জন্য ডাস্টবিন আছে। সেগুলো ব্যবহার করলে নোংরা আবর্জনা সরিয়ে টার্মিনাল পরিচ্ছন্ন রাখা যাবে। যাত্রীরা যদি টার্মিনালে ঢোকার আগেই খাবার ও পানি সংগ্রহ করে আনে তাহলে ভোগান্তি কম হয়। জরুরি প্রয়োজনে যাত্রীরা লঞ্চের ভেতরে থাকা দোকান থেকে খাবার ও পানীয় সংগ্রহ করতে পারে। এসব বিষয়ে সবার সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে।

সদরঘাটে ঢাকা নদীবন্দরের পুরনো টার্মিনালের ভেতরে ২৭টি দোকান নিয়ে গড়ে উঠেছিল একটি মার্কেট। প্রভাবশালীদের দাপটে তা সরাতে পারছিল না বন্দর কর্তৃপক্ষ। এরপর আইনি লড়াই শুরু হলে আটকে যায় উচ্ছেদ প্রচেষ্টা। সর্বশেষ হাইকোর্টের আপিল বিভাগ থেকে দেওয়া রায়ে এ বাধা দূর হয়েছে। এ পর্যায়ে গতকাল মঙ্গলবার উচ্ছেদ কার্যক্রম সমাপ্ত হয়েছে। বিপুলসংখ্যক কর্মী ও শ্রমিক নিয়ে বন্দর কর্তৃপক্ষ উচ্ছেদ কার্যক্রম চালায়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিআইডাব্লিউটিএর পরিচালক (বন্দর) মো. শফিকুল হক।


খবরটি ইউনিকোড থেকে বাংলা বিজয় ফন্টে কনভার্ট করা যাবে কালের কণ্ঠ Bangla Converter দিয়ে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা