kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

বাসচাপায় রাজীব-দিয়া হত্যা

সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য নতুন তারিখ ধার্য

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য নতুন তারিখ ধার্য

রাজধানীর শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীকে বাস চাপা দিয়ে হত্যা ও কয়েকজনকে আহত করার ঘটনায় জাবালে নূর পরিবহনের দুই বাসের মালিক, চালক ও হেলপারদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখ পিছিয়ে আগামী ২৯ এপ্রিল ধার্য করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কে এম ইমরুল কায়েশ নতুন এ তারিখ ধার্য করেন।

গতকাল সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু আদালতে কোনো সাক্ষী হাজির না হওয়ায় নতুন তারিখ ধার্য করা হয়। ২৫ অক্টোবর আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। মাত্র এক মাসের মধ্যে ৪১ জন সাক্ষীর মধ্যে ৩৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। এর আগে গত ৬ সেপ্টেম্বর জাবালে নূরের দুই বাসের মালিক শাহাদাত হোসেন আকন্দ ও জাহাঙ্গীর আলম, দুই বাসচালক মাসুম বিল্লাহ ও জুবায়ের সুমন এবং দুই হেলপার এনায়েত হোসেন ও কাজী আসাদকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দেওয়া হয়। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার অন্য একটি বাসের চালক মো. সোহাগ আলী ও হেলপার মো. রিপন হোসেনকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। অভিযুক্ত ছয় আসামির মধ্যে একটি বাসের মালিক জাহাঙ্গীর আলম ও এক বাসের হেলপার কাজী আসাদ পলাতক রয়েছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়ে আছে।

উল্লেখ্য, গত বছর ২৯ জুলাই দুপুরে শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজ ছুটি হওয়ার পর শিক্ষার্থীরা বিমানবন্দর সড়কের র‌্যাডিসন হোটেলের অন্য পাশে জিল্লুর রহমান ফ্লাইওভারের নিচে রাস্তায় বাসের ওঠার জন্য অপেক্ষা করছিল। এ সময় জাবালে নূর পরিবহনের তিনটি বাসের রেষারেষিতে শিক্ষার্থীদের ওপর বাস উঠে পড়ে। এ ঘটনায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্রী দিয়া খানম মীম ও দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবদুল করিম রাজীব নিহত হয়। গুরুতর আহত হয় প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী সোহেল রানা, রুবাইয়া ও দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইমরান চৌধুরী, মেহেদী হাসান জিসান, রাহাত, সজীব, জয়ন্তী ও তৃপ্তা। দুই শিক্ষার্থীকে হত্যা ও কয়েকজনকে আহত করার পর ওই দিনই নিহত মীমের বাবা মো. জাহাঙ্গীর বাদী হয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন।

মন্তব্য