kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুদ্ধ হলে ইরান ধ্বংস হবে : ট্রাম্প

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুদ্ধ হলে ইরান ধ্বংস হবে : ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানকে সতর্ক করে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যদি যুদ্ধ শুরু হয়, তাহলে ইরান ধ্বংস হয়ে যাবে। রবিবার এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেন, ‘ইরান যদি যুদ্ধ চায়, তাহলে সেটি হবে ইরানের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি।’ তিনি আরো বলেন, ইরান যেন আর কখনো যুক্তরাষ্ট্রকে হুমকি না দেয়।

এর আগে একই দিন সৌদি আরবও ইরানকে হুঁশিয়ার করেছিল। ইরান যুদ্ধ চাইলে তারা সর্বশক্তি দিয়ে জবাব দিতে প্রস্তুত এবং যুদ্ধ এড়ানো ইরানের ওপরই নির্ভর করছে বলে জানিয়েছিল তারা।

সম্প্রতি উপসাগরীয় অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্র অতিরিক্ত যুদ্ধজাহাজ ও যুদ্ধবিমান মোতায়েন করেছে। কয়েক দিন আগেই মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ চায় না। কিন্তু এখন ট্রাম্পের বক্তব্যে সেখান থেকে সরে আসার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। ট্রাম্পও বলেছিলেন যে তিনি আশা করেন ইরানের সঙ্গে কোনো যুদ্ধ হবে না। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফও বলেন, যুদ্ধের কোনো সম্ভাবনা নেই।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইরানের যুদ্ধ লেগে যাওয়ার সম্ভাবনায় এরই মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান আগামী ৩০ মে মক্কায় এক জরুরি বৈঠকে বসার জন্য আরব লীগ ও উপসাগরীয় দেশগুলোর জোট জিসিসি সদস্যদের আমন্ত্রণ পাঠিয়েছেন।

সৌদি বার্তা সংস্থা এসপিএ সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে জানায়, ‘সংযুক্ত আরব আমিরাতের সমুদ্রসীমায় (সৌদি) বাণিজ্যিক জাহাজে হামলা এবং সৌদি আরবের মধ্যে দুটি তেলক্ষেত্রে হুতি সন্ত্রাসীদের হামলার’ পরিপ্রেক্ষিতে এই জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে।

ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে করা পরমাণু চুক্তি থেকে একতরফাভাবে বেরিয়ে যাওয়ার পর থেকেই দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ছে। যুক্তরাষ্ট্র চুক্তি থেকে বেরিয়ে গেলেও চীন, রাশিয়া, ব্রিটেন ও ফ্রান্স এখনো ইরানের সঙ্গে করা চুক্তি বজায় রেখেছে। বিবিসির প্রতিরক্ষাবিষয়ক বিশ্লেষক জনাথন মার্কাস বলছেন, ট্রাম্প এখন চান ইরানের সঙ্গে করা এই পরমাণু চুক্তি পুরোপুরি ভেস্তে যাক।

ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে, তার ফলে ইরানের অর্থনীতি দিনে দিনে সংকটে নিমজ্জিত হচ্ছে। এই নিষেধাজ্ঞার মূল উদ্দেশ্য যেন ইরান তাদের তেল অন্য দেশের কাছে বিক্রি করতে না পারে। এ ছাড়া গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র ইরানের সবচেয়ে সুসজ্জিত বাহিনী রেভল্যুশনারি গার্ডকে সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী হিসেবে তালিকাভুক্ত করে। সূত্র : বিবিসি, এএফপি।

 

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা