kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

অস্ট্রেলিয়ায় ক্ষমতাসীন জোটের জয়

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অস্ট্রেলিয়ায় ক্ষমতাসীন জোটের জয়

অস্ট্রেলিয়ার ব্রিজবেনে গতকাল এক ভোটকেন্দ্রের সামনে অপেক্ষমাণ ভোটারের সারি। ছবি : এএফপি

অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল জয়লাভ করেছে। যদিও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি তারা। গতকাল শনিবার দেশটির সাপ্তাহিক ছুটির দিন সকাল থেকেই ভোট দিতে শুরু করে ভোটাররা। এরপর স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ভোটগণনা শুরু হয়। ৬৭ শতাংশ ভোট গণনার পর দেখা যায়, ক্ষমতাসীন লিবারেল-ন্যাশনাল জোট পেয়েছে ৭৪টি আসন। বিরোধী লেবার দল ৬৫টি এবং অন্যান্য দল পেয়েছে ছয়টি আসন। সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য ৭৬টি আসন পেতে হবে।

অস্ট্রেলিয়াজুড়ে প্রায় সাত হাজার ভোটকেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হয়। কোনো ভোটকেন্দ্রেই সংঘাত বা কোনো সমস্যার ঘটনা ঘটার খবর পাওয়া যায়নি। দেশটিতে বসবাসরত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকরাও সুষ্ঠুভাবে ভোট প্রদান করেছে। দেশটিতে প্রায় ৩০ হাজারেরও বেশি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক আছেন। দেশটির নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী প্রায় এক কোটি ৬৫ লাখ ভোটার আছে। এর মধ্যে প্রায় ৪৭ লাখ ভোটার নির্বাচনের আগেই আগাম ভোট প্রদান করেছে। সব ভোট গতকালই গণনা শেষ হওয়ার কথা।

সরকার গড়তে পার্লামেন্টের প্রতিনিধি পরিষদের (নিম্নকক্ষ) ১৫১টি আসনের মধ্যে অন্তত ৭৬টি আসনে জয় পেতে হবে। ক্ষমতাসীন মধ্য-ডানপন্থী লিবারেল-ন্যাশনাল জোট অবশ্য বর্তমানে দুটি কম আসন নিয়ে সরকারে টিকে রয়েছে। এবারের নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের লিবারেল-ন্যাশনাল জোট ও বিরোধী নেতা বিল শর্টেনের মধ্য-বামপন্থী অস্ট্রেলিয়ান লেবার পার্টির (এএলপি) মূল লড়াই হবে বলে আভাস মিলেছে। তবে ভোটের আগের জনমত জরিপগুলো বলছে, বিরোধী দল লেবার পার্টিই এগিয়ে। দেশটির প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির জয়ের সম্ভাবনা বেশি বলেই বিভিন্ন জনমত জরিপে আভাস দেওয়া হচ্ছিল। যদিও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বর্তমান মরিসন সরকারের জয় বেশির ভাগটাই দলটির সৌভাগ্যের ওপর নির্ভর করছে।

নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হলেও দেশটির নির্বাচন কমিশনের কাছে লিবারেলের বিরুদ্ধে ভোটার আত্মসাৎ করার অভিযোগ করেছে লেবার পার্টি। বিরোধী দল জানায়, দেশটির বৃহৎ চীনা বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ান ভোটারদের ব্যবহার করছে লিবারেল। ভোটকেন্দ্রের সামনে চীনা ভাষায় লিবারেলে ভোট দেওয়ার প্রচার করে দলটি। চীনা কমিউনিটিকে প্রতিনিধিত্ব করে এমন শব্দ ও রঙের ব্যবহার করে চীনা ভোটার বেশি এলাকায় পোস্টার লাগায় দলটি। তবে লেবারের এই অভিযোগ বাতিল করে দেয় নির্বাচন কমিশন। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা