kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

আতঙ্কে ঘরবাড়ি ছাড়ছে নেগোম্বোর মুসলমানরা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আতঙ্কে ঘরবাড়ি ছাড়ছে নেগোম্বোর মুসলমানরা

নেগোম্বোর এক মসজিদে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে মুসলমান শরণার্থীরা। ছবি : রয়টার্স

শ্রীলঙ্কার নেগোম্বোতে গত রবিবার আত্মঘাতী বোমা হামলার পর সেখানকার মুসলমানরা আতঙ্কে রয়েছে। শুধু তা-ই নয়, পাল্টা হামলা আশঙ্কায় সেখানকার শত শত মুসলমান শরণার্থী ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাচ্ছে। মানবাধিকারকর্মীরা জানিয়েছেন, তারা ঘরবাড়ি ছেড়ে মসজিদ এবং একটি পুলিশ স্টেশনে আশ্রয় নিয়েছে।

গত রবিবার দ্বীপ রাষ্ট্রটির গির্জা ও হোটেলে আত্মঘাতী হামলার পর এ পর্যন্ত ৩৫৯ জন নিহত হয়েছে। সবচেয়ে ভয়াবহ হামলাটি হয় সেন্ট সেবাস্তিয়ান চার্চে। স্থানীয় মুসলমান নেতারা এই হামলার নিন্দা জানালেও তাঁদের মধ্যে শঙ্কা কাজ করছে। নেগোম্বোর মুসলমানরা স্থানীয়দের কাছ থেকে পাল্টা হামলার হুমকি পাচ্ছে বলে জানিয়েছেন।

পাকিস্তান সরকার আহমাদিদের অমুসলিম ঘোষণার পর তারা পাকিস্তান ছেড়ে শ্রীলঙ্কায় গিয়ে আশ্রয় নেয়। রবিবারের হামলার পর তারা আবার বাড়িছাড়া হয়েছে। স্থানীয় এক কর্মকর্তা জানান, যেসব আহমাদি নেগোম্বোতে আশ্রয় নিয়েছিল বাড়ির মালিকরা তাদেরকে ঘর থেকে উচ্ছেদ করেছে। শ্রীলঙ্কার একজন মানবাধিকারকর্মী রুকি ফার্নান্দো বলেন, ‘আজ এসব শরণার্থী আবার শ্রীলঙ্কায় শরণার্থী হয়ে পড়েছে। তারা দ্বিতীয়বারের মতো ঘরবাড়ি ছাড়া হলো। তাদের বাড়ির মালিকদের আশঙ্কা, প্রতিশোধের হামলা যদি হয় তাহলে তাদের সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। আবার কেউ কেউ নিজেদের নিরাপত্তার জন্য নিজেরাই পালিয়ে গেছে। কিছু অজ্ঞাতপরিচয় লোক নেগোম্বোতে তাদের ঘরবাড়ি ভাঙচুর করেছে। এমনকি তাদের মারধর করেছে।’ রুকি ফার্নান্দো আরো বলেন, কতজন এ পর্যন্ত ঘরবাড়ি ছেড়েছে, তা এখনো নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। তবে নেগোম্বোর একটি মসজিদে প্রায় ৭০০ শরণার্থী আশ্রয় নিয়েছে। এ ছাড়া একটি পুলিশ স্টেশনে ১২০ জন এবং নেগোম্বো থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে গাম্পাহা মসজিদে আরো কয়েক শ শরণার্থী আশ্রয় নিয়েছে। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য