kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

অক্ষয়ের মুখোমুখি ‘ব্যক্তি’ মোদি

দিদি মিষ্টি পাঠান, কুর্তা নিজে বেছে কিনে দিন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দিদি মিষ্টি পাঠান, কুর্তা নিজে বেছে কিনে দিন

ভারতের রাজনীতিতে কেন্দ্রের বিজেপি এবং পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পর্ক দা-কুমড়া। বিশেষ করে চলমান লোকসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সম্পর্কের সেই তিক্ততা যে শিকড়-ডালপালা ছড়িয়ে আরো পোক্ত হয়েছে। সাধারণভাবে ধারণা করা যেতেই পারে, বিজেপির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যক্তি হিসেবে সম্পর্কও চরম বৈরী। কিন্তু মোদির দাবি, বাস্তবতা না নয়। বরং বিরোধী হলেও বন্ধু তাঁরা। আর এই বন্ধুত্বের প্রমাণ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা প্রতিবছর তাঁকে মিষ্টি পাঠান। নিজে পছন্দ করে কুর্তাও কিনে দেন। বলিউডের সুপারস্টার অক্ষয় কুমারের সঙ্গে এক কথোপকথনে এ তথ্যগুলো জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

মোদির বিস্ময়কর ‘তথ্য ফাঁস’ অবশ্য এটুকুর মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। ভারতীয় উপমহাদেশে ‘খিলাড়ি’ (এই শিরোনামে তাঁর বেশ কয়েকটি ব্যবসাসফল সিনেমা রয়েছে) হিসেবে পরিচিত অক্ষয়কে তিনি আরো জানান, শুধু মমতাই নন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও প্রতিবছর নিয়ম করে তাঁকে নতুন ধরনের মিষ্টি পাঠান। মূলত হাসিনা মিষ্টি পাঠান এ তথ্য জানার পর থেকে মমতাও মিষ্টি পাঠাতে শুরু করেন।

মোদির সঙ্গে কংগ্রেস নেত গুলাম নবী আজাদের দারুণ বন্ধুত্ব রয়েছে বলে অক্ষয়কে জানান ভারতের হিন্দুত্ববাদের একনিষ্ঠ সমর্থক প্রধানমন্ত্রী। অক্ষয় কুমারের নানা প্রশ্নে জবাবে ভেঙে ভেঙে এ তথ্যগুলো প্রকাশ করেন মোদি। অক্ষয় ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চান, ‘বিরোধীদের মধ্যে আপনার কোনো বন্ধু আছে?’ এ সময়ই মোদির জবাবে উঠে আসে মমতার নাম। তিনি বলেন, ‘আপনারা শুনে আশ্চর্য হবেন এবং ভোটের মৌসুমে এটা বলা আমার উচিতও নয়। কিন্তু মমতা দিদি আমার জন্য প্রতিবছর উপহার পাঠান। একটি বা দুটি কুর্তা পাঠান এবং সেটা তিনি নিজে পছন্দ করে কেনেন।’

রাজনীতির ময়দানে চরম প্রতিপক্ষ বিজেপি-তৃণমূল। ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটের আগে মোদির ‘কোমরে দড়ি পরানো’র হুংকার ছেড়েছিলেন মমতা। গত পাঁচ বছরেও বহুবার কেন্দ্র রাজ্য সংঘাত চরমে উঠেছে। সেই সব চড়াই-উতরাই পেরিয়ে ফের লোকসভা ভোট। তিন দফা হয়ে গেছে। বাকি আরো চার দফার ভোটগ্রহণ। এ রাজ্যে ভোট প্রচারে এসে মোদি যেমন মমতাকে তীব্র আক্রমণ করছেন, তেমনই মমতাও পাল্টা আক্রমণ শানিয়ে যাচ্ছেন। মোদি যেমন ‘স্পিডব্রেকার দিদি’ বলেছেন, সারদা, নারদা, সিন্ডিকেট নিয়ে টার্গেট করছেন মমতাকে, মমতাও পাল্টা ব্যবহার করছেন ‘হিটলার আংকল’, ‘এক্সপায়ারি বাবু’, ‘দাঙ্গাবাজ’, ‘নোটবন্দি কেলেঙ্কারির নায়ক’-এর মতো শব্দবন্দ। এমনই তপ্ত রাজনৈতিক আবহে মোদি জানালেন মমতার সঙ্গে তাঁর ‘বন্ধুত্ব’র কথা। মোদির এই সাক্ষাৎকারকে বলা হচ্ছে ‘সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক’। প্রধানমন্ত্রী নয়, ‘ব্যক্তি’ মোদি মুখোমুখি সুপারস্টার অক্ষয়ের। সূত্র : আনন্দবাজার।

 

মন্তব্য