kalerkantho

বুধবার। ১৯ জুন ২০১৯। ৫ আষাঢ় ১৪২৬। ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

‘ইন্দিরা গান্ধী নই, তবে কাজ করব তাঁর মতোই’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘ইন্দিরা গান্ধী নই, তবে কাজ করব তাঁর মতোই’

সক্রিয় রাজনীতিতে তিনি পা রেখেছেন চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে। তবে এর অনেক আগে থেকেই তাঁর তুলনা করা হয় তাঁর দাদি ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে। কংগ্রেসের সমর্থক হোক বা বিরোধী দলের, তাঁর নীতির বিরোধিতা কেউ করুক বা না করুক, এই একটি বিষয়ে প্রায় সবাই একমত যে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর ভাবভঙ্গি, হাসি, আদবকায়দা দাদি ইন্দিরা গান্ধীর মতোই। গত দেড় দশকেরও বেশি সময় ধরে চলা এই প্রায় কাল্ট হয়ে যাওয়া জল্পনাটি নিয়ে ফের একবার কথা বললেন স্বয়ং প্রিয়াঙ্কা গান্ধী শুক্রবার। তিনি বলেন, দাদি ইন্দিরা গান্ধীকে অনুসরণ করেই দেশের জন্য কাজ করতে তিনি পিছপা হবেন না কখনোই।

তিনি বলেন, ‘ইন্দিরাজির কাছে আমি কিছুই নই। কিন্তু দেশের জন্য সেবা করার যে ইচ্ছা তিনি পোষণ করতেন, সেই একই ইচ্ছা পোষণ করি আমি ও আমার দাদা (রাহুল গান্ধী)। কেউই আমাদের কাছ থেকে সেই ইচ্ছাটুকু ছিনিয়ে নিতে পারবে না। আপনারা চান বা না চান, আমরা আপনাদের সেবা করে যাওয়ারই চেষ্টা করব।’ উত্তর প্রদেশের কানপুরে কংগ্রেস প্রার্থী শ্রীপ্রকাশ জয়সওয়ালের হয়ে প্রচারের পর একটি বৈঠকে দলীয় কর্মীরা তাঁর সঙ্গে তাঁর দাদির তুলনার প্রসঙ্গ তুললে এই কথাগুলো বলেন তিনি।

এ সমাবেশে মোদিকে ‘দুর্বল প্রধানমন্ত্রী’ বলে আক্রমণ করেন প্রিয়াঙ্কা। তাঁর যুক্তি, প্রধানমন্ত্রী তাঁর সমালোচনা সহ্য করতে পারেন না। মোদিকে ৫৬ ইঞ্চি ছাতা নিয়েও খোঁচা দিতে ছাড়েননি সোনিয়াকন্যা।

শ্রীপ্রকাশ জায়সবালের সমর্থনে গত শুক্রবার রোড শো করেন প্রিয়াঙ্কা। প্রায় পাঁচ কিলোমিটার রোড শোতে ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। রাজ্য কংগ্রেস নেতাদের দাবি, তরুণদের উপস্থিতি ছিল নজরকাড়া। কংগ্রেস প্রার্থী শ্রীপ্রকাশকে পাশে বসিয়ে দলের কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে কখনো হাত নাড়তে, কখনো জোড়হাতে নমস্কার করতে দেখা যায় প্রিয়াঙ্কাকে। কানপুরের কর্মসূচিতে প্রধানমন্ত্রীকে কার্যত তুলোধোনা করেন তিনি। প্রিয়াঙ্কার কথায়, ‘একজন প্রকৃত রাজনীতিক কখনো মানুষের কণ্ঠস্বরকে ভয় পান না। তিনি কখনো ওই কণ্ঠস্বরকে দমিয়ে রাখতে চান না। এই সরকার দুর্বল। প্রধানমন্ত্রীও দুর্বলচিত্তের। তাঁর কোনো মনের জোর নেই।’ প্রিয়াঙ্কার তির্যক মন্তব্য, ‘গত লোকসভা নির্বাচনে উনি ৫৬ ইঞ্চি ছাতা নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছিলেন। কারণ উনি ভীতু। উনি গণতন্ত্রকে দুর্বল করতে চান।’ সূত্র : এনডিটিভি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা