kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

বইমেলায় সিসিমপুরের ইকরি-হালুমের সঙ্গে বার্নিকাট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৪:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বইমেলায় সিসিমপুরের ইকরি-হালুমের সঙ্গে বার্নিকাট

ছুটির দিন অমর একুশে গ্রন্থমেলার শিশুপ্রহরে নতুন চমক আনল সিসিমপুর। বৈচিত্র্যপূর্ণ রংয়ে সাজানো বর্ণাঢ্য সেট। সেই সাথে সিসিমপুরের জনপ্রিয় চরিত্র ইকরি, টুকটুকি, হালুম ও শিকুর প্রাণবন্ত পরিবেশনা। আর তাদের পরিবেশনায় মুগ্ধ হলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত আমেরিকার রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট। অমর একুশে গ্রন্থমেলার দ্বাদশতম দিন শুক্রবার। এ দিন ছিল তৃতীয় শিশুপ্রহর। সকাল ১১টায় খুলে দেওয়া হয় মেলার প্রবেশদ্বার।

মেলা প্রাঙ্গণে শিশুপ্রহরের পুরো সময়টা উপভোগ করার জন্য নির্ধারিত সময়ের আগেই একাডেমির বাইরে লাইন ধরে দাঁড়িয়েছিল একঝাঁক শিশু। তাদের পরনেও ছিল রংবাহারি পোশাক। প্রিয় লেখকের বই কিনতে আর সিসিমপুরের চরিত্রগুলোর সঙ্গে নেচে গেয়ে আনন্দে মাততে রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে ছুটে এসেছিল তারা।

সিসিমপুরের আয়োজন ছিল একেবারেই ভিন্ন ধাঁচের। ছিল ইকরি, টুকটুকি, হালুম ও শিকুর প্রাণবন্ত পরিবেশনা।

সকালে বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে এই মনোজ্ঞ আয়োজনে অন্যদের মধ্যে ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, ইউএসএআইডি’র মিশন ডিরেক্টর ইয়ানিনা জেরুজালেস্কি প্রমুখ। শুধু শিশু-কিশোরদের উপস্থিতিই ছিল না, তাদের সঙ্গে বর্ণিল সাজে এসেছিলেন অভিভাবকেরা। মিলনায়তন ছিল কানায় কানায় পরিপূর্ণ, শিশুদের উচ্ছ্বাসে ভরপুর। সিসিমপুরের বন্ধুরা মঞ্চে স্বভাবজাত ভঙ্গিমায় উপস্থাপন করে আর শিশু-কিশোররা হাসির ছলে শিখে নেয় সমাজ-সংস্কৃতির নানা অনুষঙ্গ।
মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটকে মঞ্চে ওঠার আহ্বান জানায় সিসিমপুরের ইকরি। এত শিশু-কিশোর আর তাদের উচ্ছ্বাস দেখে তিনিও মুগ্ধ হন। শিশুদের মতো তিনিও মেতে ওঠেন আনন্দে।

বার্নিকাট বলেন, ‘বই মানুষকে নিজ দেশের মানুষ ও সমাজের নানাবিধ বিষয় শেখানোর পাশাপাশি ভিন দেশের মানুষ ও তাদের সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে সহায়তা করে। নতুন ধ্যানধারণাকে পাথেয় করে বড় হতে সহায়তা করে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা