kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০২২ । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

৯ বছর নদীর পাড়ে থেকে নষ্ট হলো নৌ-অ্যাম্বুল্যান্স

রায়পুরা (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

১৭ নভেম্বর, ২০২২ ২০:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৯ বছর নদীর পাড়ে থেকে নষ্ট হলো নৌ-অ্যাম্বুল্যান্স

জরুরি রোগী আনা-নেওয়ার একটি নৌ-অ্যাম্বুল্যান্স পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে পুরনো ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে। নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার চরাঞ্চলবাসীর জন্য এ অ্যাম্বুল্যান্সটি দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। অযত্নে পড়ে থাকায় ইঞ্জিনসহ যন্ত্রাংশ বিকল হওয়ায় ব্যহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে নৌ-অ্যাম্বুল্যান্সটি।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দাবি, নৌ-অ্যাম্বুল্যান্সে যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল।

বিজ্ঞাপন

পরে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও সাড়া মেলেনি। তাই এ অবস্থায় নদের পাড়ে পড়ে আছে।

জানা গেছে, ২০১৩ সালের ৩ নভেম্বর স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে সরঞ্জামসহ একটি নৌ-অ্যাম্বুল্যান্স দেওয়া হয়েছিল। উপজেলার মেঘনাবেষ্টিত চরাঞ্চলের ছয়টি ইউনিয়নের অসুস্থ রোগীদের নৌপথে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসার কাজে শুরুতে কিছুদিন ব্যবহার করা হয়েছিল অ্যাম্বুল্যান্সটি। পরে পান্থশালা ফেরিঘাটে রাখা হয়। ২০১৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের গৌরীপুরে পুরনো ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে পড়ে আছে অ্যাম্বুল্যান্সটি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, অ্যাম্বুল্যান্সটিতে শ্যাওলা পড়েছে। ইঞ্জিনসহ অন্যান্য যন্ত্রাংশ মরিচা ধরে নষ্ট হয়ে গেছে। এতে অ্যাম্বুল্যান্সটি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, শুরুতে কিছুদিন রোগী আনা-নেওয়া করা হয়েছিল। পরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ হঠাৎ নৌ-অ্যাম্বুল্যান্সের সেবা বন্ধ করে দেয়।  

রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. খান নুর উদ্দিন মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর জানান, নৌ-অ্যাম্বুল্যান্স দেওয়া হলেও এর চালক নিয়োগ দেওয়া হয়নি। এ ছাড়া অ্যাম্বুল্যান্সটির যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল। পরে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার চিঠির মাধ্যমে জানানো হলেও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বর্তমানে নৌ অ্যাম্বুল্যান্সটি ব্যবহারের অনুপযোগী।



সাতদিনের সেরা