kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা : তদন্তের দায়িত্ব পেল পিবিআই

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

৬ অক্টোবর, ২০২২ ১৬:৫৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা : তদন্তের দায়িত্ব পেল পিবিআই

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ এবং ধর্ষণের দৃশ্য ভিডিও ধারণের অভিযোগে করা মামলা পুলিশ ব্যুরো অব ইনেভেস্টিগেশনে (পিবিআই) হস্তান্তর করা হয়েছে। এর আগে আলোচিত মামলাটি প্রথমে ধুনট থানার ওসি এবং পরে বগুড়া জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) তদন্ত করেছে।

বৃহস্পতিবার পিবিআই বগুড়ার পুলিশ সুপার (এসপি) কাজী এহসানুল কবির এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, মামলার নথিপত্র পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন, ভিকটিম ও সাক্ষীদের সঙ্গে কথা বলেছি। আরো কিছু বিষয়ে খোঁজখবর নিচ্ছি।

বিজ্ঞাপন

এ ছাড়া ওসি কৃপা সিন্ধু বালার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলার আলামত নষ্টের অভিযোটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুলিশ পরিদর্শক সেলিম মালিককে মামলার তদন্তভার দেওয়া হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শৈলমারি গ্রামের মুরাদুজ্জামান (৩৮) নামের এক প্রভাষক ধুনট শহরের অফিসার পাড়ায় এক প্রভাষক দম্পতির বাসায় ভাড়া থাকতেন। ওই বাসার মালিকের স্কুলপড়ুয়া মেয়েকে ৩ মার্চ থেকে ১২ এপ্রিল পর্যন্ত কয়েক দফা ধর্ষণ এবং ওই ধর্ষণের দৃশ্য ভিডিও ধারণ করেন মুরাদুজ্জামান। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা বাদী হয়ে ১২ মে মুরাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই দিনই মুরাদুজ্জামানকে গ্রেপ্তার এবং ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করা দুটি মোবাইল ফোন জব্দ করে পুলিশ। ধর্ষণ মামলায় মুরাদুজ্জামান প্রায় পাঁচ মাস বগুড়া জেলা কারাগারে আছেন। ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে।

এদিকে ধর্ষণ মামলাটি তদন্তের দায়িত্বে ছিলেন ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা। পরে উদ্ধার করা মোবাইল ফোন থেকে ধর্ষণের ভিডিও মুছে ফেলার অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওসি কৃপা সিন্ধু বালার বিরুদ্ধে ২ আগস্ট বগুড়া পুলিশ সুপারের (এসপি) কাছে অভিযোগ দেন মামলার বাদী। ফলে মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় বগুড়া জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখাকে (ডিবি)।

ওসির বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তের জন্য পুলিশ সুপার তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। ওই কমিটির সদস্যরা ১৬ আগস্ট সরেজমিন তদন্ত  এবং ৩০ সেপ্টেম্বর অভিযোগের সাক্ষীদের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন। ২৮ আগস্ট ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালাকে পাবনা জেলায় বদলি করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই বগুড়ার পুলিশ পরিদর্শক সেলিম মালিক জানান, বাদীর আবেদনের প্রেক্ষিতে তিন দিন আগে মামলা তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছি। বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ মামলাসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলেছি। মামলার তদন্তকাজ চলমান রয়েছে।  



সাতদিনের সেরা