kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০২২ । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

পূজায় ঈশ্বরগঞ্জে ‘ফ্রি হাট’, উদ্বোধন করলেন ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ    

১ অক্টোবর, ২০২২ ১৬:১৭ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



পূজায় ঈশ্বরগঞ্জে ‘ফ্রি হাট’, উদ্বোধন করলেন ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার

রোজা, ঈদ ও পহেলা বৈশাখ বা বিভিন্ন দুর্যোগে অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়ে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দিয়ে ফ্রি হাটের ব্যবস্থা করে আসছিল ‘মুক্তির বন্ধন ফাউন্ডেশন’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। এবার তারা দুর্গাপূজা উপলক্ষে নিন্মআয়ের মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে ফের এ আয়োজন করেছে। শনিবার (১ অক্টোবর) সকালে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারবাড়ি এলাকার উত্তর বনগাঁও রেলক্রসিং সংলগ্ন ইরা পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড অটোগ্যাস ফিলিং স্টেশন চত্বরে হাটটির আয়োজন করে। এই হাটটি এবার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের নিযুক্ত ভারতের সহকারী হাইকমিশনার নিরাজ কুমার জয়সওয়াল।

বিজ্ঞাপন

 

এসময় সেখানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ বিভাগের ময়মনসিংহ রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) দেবদাস ভট্টাচার্য, জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মাছুম আহম্মদ ভূঁঞা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ মোস্তাফিজুর রহমান, আঠারোবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জুবেল আলম কবির রূপক, ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি পীরজাদা শেখ মোস্তাছিনুর রহমান, উপজেলার রায়েরবাজার পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোল্লা মোজাহিদুর রহমান।

সরেজমিনে দেখা যায়, সারি সারি স্টলে সাজানো আাছে শাড়ি, লুঙ্গি ও শিশুদের বাহারি পোশাক। সাজানো হয়েছে অনেকটা শপিং সেন্টারের মতো। সঙ্গে আছে প্রসাধনী পণ্য, মেহেদি ছাড়াও চাল, সেমাই, চিনি, নারিকেল তেলসহ পূজার বাজার। সবমিলিয়ে ১২ পদের জিনিস ছিল। নারী-পুরুষ বিভিন্ন বয়সীদের জন্য আলাদা পোশাক। নিজেদের প্রয়োজন মতো নিতে পারছেন সবাই। দিতে হচ্ছে না কোনো মূল্য। যাওয়ার সময় সকলেই খেয়ে যাচ্ছেন একটি করে লাড্ডু।  

উপহার পেয়ে খুশিতে আত্মহারা ঝর্ণা রাণী সরকার, মঞ্জু রানী সরকার, দেব প্রিয়, অশোক বর্মণসহ আরও অনেই। ঝর্ণা রানী (৭০) বলেন, ‘পূজায় একটা শাড়ি কিনবাম স্বপ্নেও ভাবছি না। ভগবান ব্যবস্থা কইর‌্যা দিছে। অশোক বর্মণ (৬৫) বলেন, 'এইনো বাজার অইবো হুইন্যা আছি। টেহা নাই ভিতরে ঢুকোনোর সাহস পাইছিলাম না। পরে হুনি সব ভুলে মাগনা দিতাছে। জিনিস লইয়া বিশ্বাস অইছে। ’ তাদের মতো খুশি এই এলাকার নিন্মআয়ের মানুষরা। পূজায় নতুন জামা পেয়ে খুশি পায়েল, তৃণা রানী, গীতা রানী, বাঁধন ও নিরবের মতো বেশ কয়েকজন শিশু। শিশু পায়েল বলে, 'নতুন জামা ছাড়াও সাজের জিনিস পাইছি, আর পাইছি পরনের লাইগ্যা পায়েল। বাবার তো কিইন্যা দেঅনের সামর্থ আছিল না। '

উদ্বোধনী বক্তব্যে সহকারী হাইকমিশনার বলেন, 'আমি জেনেছি এই মুক্তির বন্ধন ফাউন্ডেশন উৎসব-পার্বণ ছাড়াও বিভিন্ন দুর্যোগে বিভিন্ন ধর্মের দরিদ্র মানুষের জন্য ফ্রি হাটের ব্যবস্থা করে দেয়। যেখান থেকে সব জিনিসই ফ্রি-তে দেওয়া হয়, যা নজিরবিহীন। এমন উদ্যোগ অন্যদের জন্য উদাহারণ হয়ে থাকবে। আমার কাছেও এটা নতুন। ওরা (মুক্তির বন্ধন ফাউন্ডেশন) ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য। ' 

ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য বলেন, 'যুব সমাজের এমন উদ্যোগ আমাদের অনুপ্রাণিত করে। তাদের এমন মানবিক কার্যক্রম আগামী দিনে নিজেদের আরও সমৃদ্ধ করবে। তিনি আরও বলেন, এদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিরাজ করছে। কেউ এই সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে পারবে না। দেশের প্রত্যেকটি সম্প্রদায় ধর্মীয় উৎসব পালন করে থাকেন। এসব উৎসব নির্বিঘ্নে  উদযাপন করার জন্য পুলিশের ভূমিকা রয়েছে। শারদীয় দুর্গোৎসব নির্বিঘ্নে পালনের জন্য পুলিশ সতর্ক রয়েছে।  

আয়োজকদের মধ্যে মুক্তির বন্ধন ফাউন্ডেশনের শাহরিয়ার খান, অনীক সরকার, মীম সরকার, আজহারুল ইসলাম পলাশ বলেন, বিশাল গোষ্ঠী ছাড়াও এই হাট সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ক্রয়সামর্থ্যহীন পরিবারের লোকজনও যাতে অনায়াসে একটা উৎসব বা ক্রান্তিলগ্নে সহায়তা পেতে পারেন, এই জন্য এই হাটের ব্যবস্থা। বিশেষ করে চলতি পূজায় নারী, শিশু, বৃদ্ধ-বৃদ্ধারা খুশিমনে হাটে এসে নতুন জামা-কাপড়-শাড়ি ও পূজার নানা উপকরণ নিয়ে যেতে পারেন।  



সাতদিনের সেরা