kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০২২ । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

নরসিংদীর পলাশ

নিজ বাড়ির উঠানেই দিনমজুরকে হাত-মুখ বেঁধে গলা কেটে হত্যা

নরসিংদী প্রতিনিধি    

১ অক্টোবর, ২০২২ ১৫:২৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিজ বাড়ির উঠানেই দিনমজুরকে হাত-মুখ বেঁধে গলা কেটে হত্যা

নরসিংদীর পলাশে মনির হোসেন (৪০) নামের একজনকে নিজ বাড়ির উঠানেই হাত-মুখ বেঁধে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের নরসিংহারচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মনির হোসেন নরসিংহারচর গ্রামের জামাল উদ্দিনের ছেলে। তিনি পেশায় দিনমজুর ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

 

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে নিহত মনির  হোসেনের মুঠোফোনে একটি কল আসে। পরে তিনি তার স্ত্রী কোহিনুর বেগমের ওড়না কাঁধে দিয়ে ঘর থেকে বের হয়ে রাতে আর ঘরে ফেরেননি। ভোরে ফজরের নামাজ পড়ার জন্য মনির হোসেনের বাবা জামাল উদ্দিন ঘর থেকে বের হন। তখন তিনি বাড়ির উঠানে ঘরের দরজার সামনে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় ছেলে মনির হোসেনের গলা কাটা লাশ দেখতে পান। পরে বাবা জামাল উদ্দিনের চিৎকারে বাড়ির মানুষসহ আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। এ সময় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।  

নিহতের মা নাজমা বেগম বলেন, ‘রাত ২টার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাইরে গিয়েছিলাম। তখনো কিছু দেখতে পাইনি। রাত ১টার সময় যে আমার ছেলে বাইরে গিয়ে আর ফিরে আসছে না, এটা তার স্ত্রী আমাকে কিংবা তার বাবাকে জানায়নি। ’

এ বিষয়ে পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ইলিয়াছ জানান, রাতের আঁধারে দিনমজুর মনির হোসেনকে গলা কেটে হত্যা করার খবর পাওয়ামাত্র ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। কে বা কারা রাতে ফোন করে মনির হোসেনকে ঘর থেকে বের করে নিয়ে এই ঘটনা ঘটিয়েছে, তা এখনো জানা যায়নি। বিষয়টি খুবই গুরুত্বসহকারে তদন্ত করা হচ্ছে। এ ছাড়া নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় পলাশ থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।



সাতদিনের সেরা