kalerkantho

রবিবার । ৪ ডিসেম্বর ২০২২ । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আ. লীগ নেতা হত্যা, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের আরো দুই নেতা গ্রেপ্তার

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ২২:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আ. লীগ নেতা হত্যা, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের আরো দুই নেতা গ্রেপ্তার

ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুর রহমান শুভ- ছবি সংগৃহীত

বগুড়ার শেরপুরে আওয়ামী লীগ নেতা শেখ মর্তুজা কাওসার অভি (৩৮) খুনের মামলায় আরো দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কাজীপুর উপজেলার নাটুয়ারপাড়া চর থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুর রহমান শুভ (৩৫) ও শেরপুর পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম বাপ্পি (৩৭)।

শুক্রবার বিকেলে শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আতাউর রহমান খন্দকার এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সহযোগিতা নিয়ে মামলার এজাহার নামীয় অভিযুক্ত শুভ ও বাপ্পিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এ নিয়ে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দায়ের করা মামলার নামীয় আটজনের মধ্যে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আওয়ামী লীগ নেতা অভির সঙ্গে ঠিকাদারি ও হাটের ইজারা ব্যবসা নিয়ে অভিযুক্তদের সঙ্গে বিরোধ দেখা দেয়। এক পর্যায়ে বিগত ২৮ সেপ্টেম্বর বুধবার সাড়ে চারটার দিকে অভি প্রাইভেটকার মেরামতের জন্য উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন মোজাহিদ মোটরগ্যারেজে যান। এরপর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ হিমেল অভিকে ডেকে গ্যারেজের দক্ষিণপাশের ফাঁকা বাগানের মধ্যে নিয়ে কথা বলেন। এ সময় শরীফ নামের এক যুবক সাধারণ লোকজনকে সেখান থেকে সরিয়ে নিয়ে যায়। এই সুযোগে আগে থেকেই ওৎপেতে থাকা মামলার অন্য অভিযুক্তরা এসে অভির সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এসময় তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করেন। প্রাণ বাঁচাতে বাগানের ভেতর দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন অভি। পরে দেশিয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারী কুপিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। এরপর আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে (শজিমেক) নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক অভিকে মৃত ঘোষণা করেন।



সাতদিনের সেরা