kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৯ নভেম্বর ২০২২ । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভোলায় ১১৬ মণ্ডপে দুর্গাপূজা, থাকবে ৪ স্তরের নিরাপত্তা

ইকরামুল আলম, ভোলা   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ২১:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভোলায় ১১৬ মণ্ডপে দুর্গাপূজা, থাকবে ৪ স্তরের নিরাপত্তা

শনিবার ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা। ভোলা জেলায় এ বছর ১১৬টি মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে শারদীয় এ উৎসব। পূজা উপলক্ষে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। কোনো প্রকার অপ্রিয়কর ঘটনা এড়াতে পুলিশের পক্ষ থেকে চার স্তরের নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

প্রতিটি পূজা মণ্ডপে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করতে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে সামাজিক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেলের মাধ্যমে নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ভোলা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে জানান, গত ২৫ সেপ্টেম্বর মহালায়ার মধ্য দিয়ে দেবীপক্ষের আগমন ঘটেছে। শনিবার ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। ৫ অক্টোবর বুধবার বিজয়া দশমীতে বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে দুর্গাপূজার সব আনুষ্ঠানিকতা। এ বছর ভোলা জেলায় ১১৬ টি পূজা মণ্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপন করা হবে। এর মধ্যে ভোলা সদর উপজেলায় ২৭টি, দৌলতখান উপজেলায় ৮টি, তজুমদ্দিন উপজেলায় ১৬টি, বোরহানউদ্দিন উপজেলায় ২০টি, লালমোহন উপজেলায় ২২টি, চরফ্যাসন উপজেলায় ১৩টি ও মনপুরা উপজেলায় ১০টি।

ভোলার পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, ভোলা জেলার ১১৬টি পূজা মণ্ডপের মধ্যে ৩২টি অধিক গুরুত্বপূর্ণ, ৪১টি গুরুত্বপূর্ণ ও ৪৩টি সাধারন পূজা মণ্ডপ রয়েছে। ইতিমধ্যে ভোলা জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সদস্যদের সাথে জেলা পুলিশের নিরাপত্তা সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি মণ্ডপে একজন করে পুলিশ অফিসারসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ ও আনসার সদস্য মোতয়েন করা হয়েছে। অধিক গুরুত্বপূর্ণ পূজা মণ্ডপে ৮ জন, গুরুত্বপূর্ণ পূজা মণ্ডপে ৬ জন ও সাধারণ পূজা মণ্ডপে ০৪ করে আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। পূজার বিষয়ে গুজব থেকে সচেতন থাকতে ভোলার ওলামা-মাশায়েখদের সাথেও জেলা পুলিশের মতবিনিময় সভা করা হয়েছে।

এ ছাড়া র‌্যাব ও কোস্ট গার্ডের নিজস্ব টহল কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ চেকপোস্ট, সার্বক্ষণিক মোবাইল টিম ও সাদা পোশাকে পুলিশের গোয়েন্দা নজরদারি থাকবে।



সাতদিনের সেরা