kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৯ নভেম্বর ২০২২ । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ২৫ কিলোমিটার যানজট

কুমিল্লা প্রতিনিধি   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৬:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ২৫ কিলোমিটার যানজট

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দির গৌরীপুর এলাকায় সড়কের সংস্কার কাজ চলছে। এই কাজের কারণে চট্টগ্রাম থেকে থেকে ঢাকামুখী লেনে ২৫ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন চালক ও যাত্রীরা।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টা থেকে এই যানজট সৃষ্টি হয়। প্রথমে অস্থায়ী যানজট থাকলেও দুপুরের দিকে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

চালক ও যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গৌরীপুর বাজারের কাছাকাছি অংশে সংস্কার কাজ চলছে। সংস্কার কাজ ২৪ ঘণ্টা চলমান থাকার কারণে মহাসড়কের ঢাকামুখী লেনের মাত্র একটি গাড়ি চলতে পারে। এতে গাড়ির চাপ সৃষ্টি হলে চান্দিনার মাধাইয়া এলাকা থেকে গৌরীপুর হয়ে দাউদকান্দি টোলপ্লাজা পর্যন্ত যানজট লেগে যায়। এতে ভোগান্তি পড়ে অ্যাম্বুলেন্স, যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী গাড়িসহ সব ধরণের যানবাহন।

কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী একটি পরিবহনের যাত্রী মোহাম্মদ সোহেল জানিয়েছেন, কুমিল্লা থেকে ৬ ঘণ্টায় তিনি গৌরিপুর বাজারে এসেছেন। চার ঘণ্টায় তিনি আধা কিলোমিটার জায়গা পার হতে পেরেছেন।

দুপুরে দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘যানজট আছে কিছুটা। আমাদের পুরো টিম মাঠে কাজ করছে। গত দুদিন আমি নিজেও রাস্তায় আছি। আমরা চেষ্টা করছি যানজট কমিয়ে আনার। এখন গাড়ি চলাচল অনেকটা স্বাভাবিক। তবে ধীরগতি আছে।  আমরা ড্রাইভার ও যাত্রীদের সরকারি কাজে সহায়তা করতে অনুরোধ করব। ’

কুমিল্লার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুনীতি চাকমা বলেন, ‘আমরা সংস্কার কাজ দ্রুত গতিতেই করছি। পূজার কারণে ঘরমুখো মানুষের চাপ বেশি। যানবাহনও বেশি। তাই যানজটে ভোগান্তি হচ্ছে। আমরা যানজট প্রবল এলাকায় মাইকিং করছি। অলটারনেটিভ হিসেবে যেন কুমিল্লা-ব্রাহ্মণবাড়িয়ে হয়ে ঢাকা সড়ক ব্যবহার করার অনুরোধ করছি। তাছাড়া আমরা সবাইকে বলবো ঢাকা যাওয়ার জন্য যেন সময় নিয়ে বের হয়। আমরা জনগণের জন্যই কাজ করি। আমরা সবাইকে বলবো কাজ শেষ হওয়া পর্যন্ত একটু ধৈর্য ধরতে। ’

তিনি আরো বলেন, ‘একটি অংশের কাজ শেষ করে কয়েকদিন কোন গাড়ি ওই অংশে আমরা চলাচল করতে দেই না। যাতে কাজটি মজবুত হয়। এই কারণে সময় বেশি লাগছে। আরও ৫ থেকে ৬ মাস সময় লাগতে পারে পুরো কাজ শেষ হতে। ’



সাতদিনের সেরা