kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০২২ । ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফ্যানে ঝুলছেন গৃহবধূ, পরিবারের দাবি হত্যা

রায়পুরা (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৫:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফ্যানে ঝুলছেন গৃহবধূ, পরিবারের দাবি হত্যা

নিহত গৃহবধূর নাম আরজিনা আক্তার

নরসিংদীর রায়পুরায় শ্বশুরবাড়ি থেকে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার মহেশপুরে এ ঘটনা ঘটে।  

নিহত গৃহবধূর নাম আরজিনা আক্তার (১৬)। তিনি উপজেলার রায়পুরা ইউনিয়নের আশ্রারাপুর গ্রামের জালাল মিয়ার মেয়ে ও মহেশপুর এলাকার জীবন মিয়ার স্ত্রী।

বিজ্ঞাপন

নিহতের বাবা জালাল মিয়া জানান, স্বামীর মারধরে আরজিনার মৃত্যু হয়েছে। পরে তাকে রুমের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়। ঘটনার পর থেকে নিহত গৃহবধূর স্বামীসহ পরিবারের বাকি সদস্যরা আত্মগোপনে চলে গেছেন বলে জানান তিনি।

পারিবারিক সূত্র জানায়, আরজিনা ও জীবনের প্রেমের সর্ম্পক ছিল। পরে গত বছর পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্ত্রীকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিলেন জীবন। এ নিয়ে থানায় জীবনের বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডায়েরিও করে  আরজিনার পরিবার। তবু নির্যাতন থেমে থাকেনি। শনিবার বিকেলে আরজিনার মা মেয়েকে আনতে গেলে জীবন শাশুড়িকে অপমান করে বাড়ি থেকে বের করে দেন। এরপর স্ত্রীকে মারধর করেন। রাতে স্বজনরা সংবাদ পান, আরজিনা মারা গেছেন।

রাতে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে একটি কক্ষের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস লাগানো আরজিনার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে।

আরজিনার ভাই মো. খাজা জানান, তার ভগ্নিপতি একাধিক নারীর সঙ্গে পরকীয়া প্রেমে জড়িত ছিল। এ ব্যাপারে প্রতিবাদ করায় তার বোনের ওপর নির্যাতন চালাত ও মেরে ফেলার হুমকি দিত জীবন।

রায়পুরা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোবিন্দ সরকার বলেন, সুরতহাল শেষে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে নিহতের পরিবারের কাছ থেকে অভিযোগ পাইনি। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসার পর ওই গৃহবধূর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।



সাতদিনের সেরা