kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০২২ । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

নেশা করে স্ত্রীদের নির্যাতন, জোট বেঁধে চেয়ারম্যানের কাছে নারীরা

বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধি   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৮:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নেশা করে স্ত্রীদের নির্যাতন, জোট বেঁধে চেয়ারম্যানের কাছে নারীরা

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার সদর ইউপির সাতগাছী গ্রামের আদিবাসী পল্লীতে চোলাই মদ উৎপাদনের জমজমাট ব্যবসা শুরু হয়েছে। স্কুলগামী ছেলে-মেয়েরা নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। এ ছাড়া পুরুষরা নেশা করে বাড়িতে গিয়ে মাতলামি করছেন। কারণে-অকারণে স্ত্রী-পুত্র-কন্যাদের মারধর করছেন অনেকে।

বিজ্ঞাপন

নিজ বাড়িতে নেশাগ্রস্ত স্বামীদের নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে ওই গ্রামের নারীরা। অবশেষে স্বামীদের নির্যাতন ও স্কুলগামী ছোট ছোট ছেলে-মেয়ের ভবিষ্যৎ রক্ষায় চোলাই মদ উৎপাদন বন্ধ করতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের নিকট লিখিত অভিযোগ করেন তারা। কার্যকর কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় রবিবার সকালে আদিবাসী মেয়েরা দলবদ্ধ হয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে আসেন।  

ওই গ্রামের আনন্দ পাহানের স্ত্রী কবিতা রাণী, নরেন পাহানের স্ত্রী শেফালী রাণী, রণজিতের স্ত্রী সারথী, শালবালাসহ একাধিক আদিবাসী নারী জানান, সাতগাছী গ্রামের মিঠুন পাহানের স্ত্রী আলপনা রাণী, মৃত কাশিনাথের স্ত্রী দুলালীসহ ১২-১৩ জন চোলাই মদ উৎপাদনের সাথে জড়িত। এসব চোলাই মদ পান করে পুরুষরা তাদের স্ত্রীর প্রতি নির্যাতন করছেন। স্কুলগামী ছেলে-মেয়েরা নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। তাই আদিবাসী মেয়েরা চোলাই মদ উত্তোলন বন্ধের দাবি জানান।  

বদলগাছী সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘এ বিষয়ে পাঁচ দিন আগে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছিলাম। রবিবার পরিষদে দুই পক্ষকে ডেকেছিলাম। যারা ব্যবসার সাথে জড়িত তারা আর চোলাই মদ উৎপাদন করবে না বলে মুচলেকা দিয়েছে। ’



সাতদিনের সেরা